বিজিএমইএ’র নির্বাচনকে সামনে রেখে নতুন ফোরাম

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৯:২৮ , জানুয়ারি ১১ , ২০১৮

বিজিএমইএ ভবন (ছবি- নাসিরুল ইসলাম)

বিজিএমইএ নির্বাচনকে সামনে রেখে ‘স্বাধীনতা পরিষদ’ নামে ব্যবসায়ীদের নতুন একটি ফোরামের আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে আগামী নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ডিজাইন অ্যান্ড সোর্স (ডিএসএল) গ্রুপের মালিক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।  নিজেকে তিনি নতুন এই ফোরামের আহ্বায়ক হিসাবে পরিচয় দেন।

সংবাদ সম্মেলনে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘‘নির্বাচন এড়িয়ে কোনও অবস্থাতেই সমঝোতার কমিটি হতে দেওয়া হবে না। সেজন্য ‘স্বাধীনতা পরিষদ’ নামের নতুন ফোরাম গঠন করা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে নির্বাচনের মাধ্যমে নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত না হওয়ায় বিজিএমইএ একটি স্থবির ও অকার্যকর সংগঠনে পরিণত হয়েছে।  সাধারণ সদস্যরা প্রয়োজনীয় সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। হয়রানি ও অবেহেলার শিকার হচ্ছেন। নেতাদের নির্বাচনের প্রয়োজন না হওয়ায়, তারা সদস্যদের কাছে জবাবদিহিতার প্রয়োজন মনে করছেন না। এ অবস্থায় পোশাক শিল্পের উন্নয়নে বিজিএমইএ-তে সদস্যদের সরাসরি ভোটের মাধ্যমে নির্বাচনের লক্ষ্যে স্বাধীনতা পরিষদ বিজিএমইএ’র নির্বাচনে অংশ নেবে।’ সমঝোতার মাধ্যমে নতুন কমিটি হলে বিজিএমইএ’র সদস্যরা তা মেনে নেবেন না বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে তৈরি পোশাক শিল্প। এই শিল্পের সঙ্গে জড়িত মালিকদের নিয়ে গঠিত বিজিএমইএ। বর্তমানে এই শিল্প একটি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। অ্যাকর্ড ও  অ্যালায়েন্স-এর কিছু অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে অনেক শিল্পকারখানা। যার ফলে চার হাজারেরও বেশি সদস্যের বিজিএমইএ সংগঠনটির বর্তমান সদস্য প্রায় অর্ধেক হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে ক্ষুদ্র এবং মাঝারি পোশাকশিল্প উদ্যেক্তারা সময়োপযোগী সহযোগিতার অভাবে ধীরে ধীরে ব্যর্থ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হচ্ছেন। আমাদের উদ্দেশ্য বিজিএমইএ’র এই সব প্রতিষ্ঠানের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করা।’

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমরা বিজিএমইএ’র গার্মেন্টস মালিকদের সরাসরি ভোটের মাধ্যমে পছন্দ মতো নেতৃত্ব নির্বাচনের অধিকার নিশ্চিত করতে চাই।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা পরিষদ (বিজিএমইএ)-এর সদস্য আমিনুল ইসলাম, শহিদুর রহমান, গোলাম মওলা চৌধুরী, ওমর ফারুক, আয়েশা আক্তার, মাহমুদ আক্তার, মাহমুদ হোসেন, আনসারুল আলম লিংকন, হুমায়ুন রশিদ জনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৭-১৮ মেয়াদে বিজিএমইএ’র নেতৃত্ব নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা হয়েছে। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৭ মার্চ সংগঠনটির ৩৫ পরিচালক পদে নির্বাচন হবে। এরপর ১৫ মার্চ নির্বাচিত পরিচালকরা একজন সভাপতি এবং সাত জন সহ-সভাপতি নির্বাচন করবেন।

এর আগে গত ১৮ ডিসেম্বর বিজিএমইএ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়। সে অনুযায়ী মনোনয়ন দাখিলের শেষ তারিখ ৩০ জানুয়ারি।  সাড়ে চার হাজার সদস্যের সমিতি হলো বিজিএমইএ। এতদিন ধরে সম্মিলিত পরিষদ ও ফোরাম নামে দুটি প্যানেলে ভাগ হয়ে নির্বাচন করে আসছিলেন তৈরি পোশাক ব্যবসায়ীরা।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ ২০১৫ সালের নির্বাচনে দুই পক্ষ সমঝোতা করে সম্মিলিত পরিষদের প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমানকে বিজিএমইএ’র সভাপতি করা হয়।

 

 

/জিএম/এপিএইচ/

x