এবার তেল-গ্যাস অনুসন্ধানে আজারবাইজানের সঙ্গে চুক্তির উদ্যোগ

সঞ্চিতা সীতু ২৩:১৫ , ফেব্রুয়ারি ১৪ , ২০১৮

 

বাপেক্স-সকারএবার তেল-গ্যাস অনুসন্ধানে আজারবাইজানের সঙ্গে চুক্তি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আজারবাইজানের রাষ্ট্রীয় কোম্পানি ‘সকার‘-এর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে কাজ করবে ‘বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি লিমিটেড’ (বাপেক্স)।এজন্য দুই দেশের মধ্যে এই বছরের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি হতে পারে। বাপেক্স-এর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, সম্প্রতি দেশের চারটি কূপে গ্যাস উত্তোলনে উন্ম‍ুক্ত দরপত্রে অংশ নেয় আজারবাইজানের কোম্পানি ‘সকার’। তাদের দর বাপেক্সের দরের কাছাকাছি হওয়ায় সরকার কোম্পানিটির কাছ থেকে আরও সহযোগিতা নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে।

পেট্রোবাংলা সূত্র জানায়, তেল গ্যাস অনুসন্ধানে রিগ (খননযন্ত্র) ভাড়া ধরলে বাপেক্সের একটি গ্যাস কূপ খনন করতে ১ কোটি ডলার প্রয়োজন হয়।কিন্তু বাপেক্সের নিজস্ব রিগ রয়েছে ৫টি। এগুলোর সাহায্যে কূপ খনন খরচ কমে যায়। আজারবাইজানের কোম্পানিটির খরচ হয় ১ কোটি ১০ লাখ ডলার।অন্যদিকে বর্তমানে দেশে প্রায় ১৫টি কূপ খননের কাজ করেছে রাশিয়ান কোম্পানি গ্যাজপ্রম। তাদের দর ১ কোটি ৮০ লাখ  ডলার পর্যন্ত উঠেছে।যা আজারবাইজানের তুলনায় অনেক বেশি।আবার রাশিয়ান এই কোম্পানিটি নিজেরা কাজ পেলেও তারা ‘এরিয়াল‘ নামের অন্য একটি কোম্পানিকে দিয়ে কাজ করায়।

পেট্রোবাংলার একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, তুলনামূলকভাবে ‘সকার’-এর তেল-গ্যাস উত্তোলনের খরচ বেশ কম। এজন্য সকার কোন কোন ক্ষেত্রে বাপেক্সকে সহায়তা করতে পারে সে বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। এরইমধ্যে নয় সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল আজারবাইজান সফর করেছেন।

গত মাসের ২৬ জানুয়ারি আজারবাইজান সফর করে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলটি।এতে নেতৃত্ব দেন লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহম্মদ শহিদুল হক। ওই প্রতিনিধি দলে জ্বালানি সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী ছাড়াও বাপেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নওশাদ ইসলাম, লেজিসলেটিভ ও সংসদ, অর্থ, জ্বালানি বিভাগ ও বাপেক্সের কর্মকর্তারা ছিলেন।

বাপেক্স জানায়, দুই দেশের রাষ্ট্রীয় কোম্পানি পর্যায়ে চুক্তিটি সই হবে। দেশের কোথায় কোথায় সকার বাপেক্সকে সহায়তা করতে পারে তা নির্ধারণ করে সেই অনুযায়ী কাজ করা হবে। সম্প্রতি সকারের সঙ্গে যে আলোচনা হয়েছে তাতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সন্তুষ্ট। এখন আজারবাইজানের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সফর করবেন। দুই পক্ষের আলোচনার মধ্য দিয়ে একটি সমঝোতা স্মারক চূড়ান্ত করা হবে।

এর আগে তিন কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার ব্যয়ে নতুন তিনটি কূপ খনন করতে সকারের সঙ্গে আলাদা চুক্তি করেছে বাপেক্স। কূপগুলো হলো সেমুতাং দক্ষিণ-১, মাদারগঞ্জ-১ ও বেগমগঞ্জ-৪।

/এমএনএইচ/

x