দক্ষিণাঞ্চলে ‘ভূমি ব্যাংক’ তৈরি করবে সরকার

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৮:৩৭ , সেপ্টেম্বর ১৩ , ২০১৮




ডিসিসিআই আয়েজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক প্রধান সমন্বয়কারী মো. আবুল কালাম আজাদদেশের দক্ষিণাঞ্চলে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের আওতায় সরকার এক লাখ একরের ‘ভূমি ব্যাংক’ তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক প্রধান সমন্বয়কারী মো. আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেছেন, ইতোমধ্যে প্রায় ৩৫ হাজার একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে, যা অচিরেই বেজা (বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ)-এর নিকট হস্তান্তর করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে বেসরকারি খাতের সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি বাড়াতে দেশের বেসরকারি খাত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। দেশের মানুষ বিশেষ করে যুবসমাজের দক্ষতা উন্নয়নে বেসরকারি খাতকে আরও এগিয়ে আসা উচিত।

এসময় তিনি সরকার নির্ধারিত অর্থনৈতিক অঞ্চলে বেসরকারি খাতকে বিনিয়োগের আহবান জানান।

ডিসিসিআই অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত সভায় বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (বিআইডিএস)-এর সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ড. নাজনীন আহমেদ সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি মানব সম্পদের দক্ষতা উন্নয়ন ও অবকাঠামো বৃদ্ধির উপর গুরুত্বারোপ করেন। পাশাপাশি তিনি বৈদেশিক বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য কর্পোরেট করের হার কমানো এবং দীর্ঘমেয়াদী নীতি সহায়তা প্রদানের আহবান জানান।

সভায় ঢাকা চেম্বারের সভাপতি আবুল কাসেম খান বলেন, এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি এবং প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা বৃদ্ধি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে জ্বালানি অপ্রাপ্যতা এবং উচ্চমূল্য, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, অপ্রতুল অবকাঠামো, ব্যবসা পরিচালনায় ব্যয় বৃদ্ধি, আইনগত দীর্ঘসূত্রিতা এবং সর্বোপরি ঋণ প্রাপ্তির অপ্রতুলতাসহ বহুমুখী সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে দেশের বেসরকারি খাত। এ জন্য তিনি এসজিডি’র লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে বেসরকারিখাতের অংশগ্রহণ আরও বাড়ানোর পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদী নীতিমালায় সহযোগিতার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

আলোচনায় অংশ নিয়ে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই)-এর সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবির নতুন নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো ও শিক্ষাখাতের গুণগত এবং আমূল সংস্কারের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

সভায় চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (সিসিসিআই)-এর সভাপতি মাহবুবুল আলম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। আলোচনায় অংশ নেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)-এর সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান, পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআরআই)-এর গবেষণা পরিচালক ড. এম এ রাজ্জাক।

 

/জিএম/টিটি/

x