‘অগ্নিকাণ্ডের সঙ্গে রোগীর মৃত্যুর কোনও সম্পর্ক নেই’

বরিশাল প্রতিনিধি ০৩:৪৮ , জুন ২০ , ২০১৭





শেবাচিমবরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের সিসিইউ ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডে এক রোগীর একটি মনিটরিং মেশিন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসময় নুরুল ইসলাম (৬০) নামের অন্য এক রোগীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। রবিবার (১৮ জুন) রাত ১০ টার দিকে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। ওয়ার্ডের চিকিৎসক সাইদুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে অগ্নিকাণ্ডের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সাইদুর রহমান বলেন, ‘আগুন লাগার পর রোগীদের বাইরে বের করে আনা হয় এবং অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডারের সহায়তায় আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়। এতে কোনও রোগীর কোনও ধরনের সমস্যা হয়নি। মারা যাওয়া রোগীর স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের সঙ্গে তার (নুরুল ইসলাম) মৃত্যুর কোনও সম্পর্ক নেই।’

মারা যাওয়া নুরুল ইসলাম ভোলার বোরহানউদ্দিনের বাসিন্দা। তার মেয়ে রিংকু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তার বাবা চিকিৎসাধীন ছিলেন। হঠাৎ আগুন লাগার পর তারা তাকে পাশের ওয়ার্ডে নিয়ে আসেন। এরপর তার বাবার মৃত্যু হয়।’

হাসপাতালের পরিচালক ডা. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘খবর পেয়ে তিনি হাসপাতালে আসেন। শর্টসার্কিটের মাধ্যমে রোগীর মনিটরিং মেশিনটিতে আগুন লাগে। তবে ইউনিটের ১৬ টি বেডের মধ্যে ভর্তিরত ১৪ বেডের কোন রোগী ও স্বজনদের কেউ হতাহতের খবর নেই। পাশাপাশি চিকিৎসক ও সেবিকারাও ঠিক আছেন। রোগীরা সব ভালো আছেন। যে রোগীর মৃত্যু হয়েছে, তিনি ঘটনাস্থল থেকে দূরে ছিলেন। আর ওই রোগীর আগে থেকেই কার্ডিওলজিক শকসহ নানা সমস্যা ছিল।’

ডা. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘যে রোগীর মনিটরে আগুন লেগেছে তিনিও ভালো রয়েছেন, তাকে পোস্ট সিসিইউ’র ৫ নম্বর বেডে স্থানান্তর করা হয়েছে। অপরদিকে সিসিইউ ইউনিট প্রকৌশলীরা পরিদর্শন করছেন। তারা জানিয়েছেন আগুন লাগার স্থান ছাড়া সার্বিক সবকিছু ঠিক রয়েছে।’

ফায়ার সার্ভিস বরিশাল স্টেশনের কর্মকর্তা দেবাশীষ বিশ্বাস বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে দেখতে পান অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার দিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়েছে। শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে এ আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে বলে প্রাধমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।’

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সিসিইউ ওয়ার্ডে ভর্তিরত রোগীর স্বজন মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা জয়নাল মিয়া বলেন, ‘তার স্বজন মোশারেফ হোসেনকে (৩৫) সিসিইউ ওয়ার্ডে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসক তার শরীরে কার্ডিয়াক মনিটর লাগিয়ে শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছিলেন। রাত ১০ টার দিকে মনিটরের পেছন দিক থেকে শর্টসার্কিটের মাধ্যমে আগুন লাগে। তাৎক্ষণিক ওই ওয়ার্ডের ভেতরে থাকা রোগীদের স্বজনরা বের করে আনেন।’

/এনআই/

x