সোনারগাঁও হবে সাংস্কৃতিক অঞ্চল: আসাদুজ্জামান নূর

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ১৮:৩৯ , জানুয়ারি ১৪ , ২০১৮

লোকজ উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওকে সাংস্কৃতিক অঞ্চল করা হবে। বিদেশি পর্যটকদের আকর্ষণের জন্য সরকার দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। সোনারগাঁও জাদুঘর সম্প্রসারণের জন্য একটি প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রকল্পটি পাস হলে একটি নতুন জাদুঘর অডিটরিয়ামসহ সম্প্রসারণ করা হবে। এছাড়া বড় সর্দার বাড়ির মতো পানাম নগরীকে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

রবিবার (১৪ জানুয়ারি) নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে মাসব্যাপী লোক ও কারুশিল্প মেলা এবং লোকজ উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী।  

লোকজ উৎসবে সংস্কৃতিমন্ত্রী তিনি জানান, পানাম নগরীর ৫২টি ভবন রয়েছে। এর মধ্যে যেগুলোর নকশা পাওয়া যাচ্ছে সেগুলো পুরনো আদলে নির্মাণ করা হবে। যেসব ভবনের নকশা পাওয়া যাবে না সেগুলো সংরক্ষণ করা হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক কবি রবিন্দ্র গোপ, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা শাহিনুর ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মতিয়ার রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া প্রমুখ।

লোক ও কারুশিল্প মেলা বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মাসব্যাপী এ মেলা চলবে ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এবারের মেলায় বাংলাদেশের পল্লি অঞ্চল থেকে ৬০ জন কারুশিল্পী অংশ নিচ্ছেন। তাদের জন্য ৩০টি স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

লোক ও কারুশিল্প মেলা এখানে সিলেট ও মুন্সীগঞ্জ অঞ্চলের শীতলপাটি, নওগাঁ ও মাগুরার শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাড়ি ও মুখোশ, ঢাকার শাঁখাশিল্প ও মৃতশিল্প, চট্টগ্রামের তালপাতার হাতপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, ঠাকুরগাঁয়ের বাঁশের কারুশিল্প, সোনারগাঁয়ের এক কাঠের চিত্রিত হাতি ঘোড়া পুতুল ও  কাঠের কারুশিল্প, নকশিকাঁথা, বেতের কারুশিল্প, কুমিল্লার তামা-কাঁসা পিতলের কারুশিল্প, রাঙামাটি, বান্দরবান ও সিলেটের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কারুপণ্য, কিশোরগঞ্জের টেরা কোটাশিল্প প্রভৃতি স্থান পেয়েছে। মেলায় মোট ১৮০টি স্টল রয়েছে। এছাড়া মেলার কারুমঞ্চে প্রতিদিন থাকছে বাউলগান, পালাগান, কবিগান, ভাওয়াইয়া ও ভাটিয়ালী গান, জারি-সারি ও হাছন রাজার গান,লালন সংগীত, মাইজভান্ডারী গান এবং হারিয়ে যাওয়া খেলাধুলা, ঘুড়ি ওড়ানো, লোকজ জীবন প্রদর্শনী, লোকজ গল্প বলা, পিঠা প্রদর্শনী।

/বিএল/

x