পরীক্ষাকেন্দ্র ভাঙচুর, দেড়শ’ জনকে আসামি করে মামলা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ১১:০০ , ফেব্রুয়ারি ১৪ , ২০১৮

নকল করতে না দেওয়ার অভিযোগে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের যাদুরচর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি গাড়ি ভাঙচুর করেছে পরীক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় অজ্ঞাতনামা দেড়শ’ জনকে আসামি করে রৌমারী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি গাড়িচালক শহিবার রহমান বাদী হয়ে এ মামলা করেন। রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর আলম বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে, ভাঙচুরের ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আশরাফুল ইসলামকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক আবু ছালেহ মোহাম্মদ ফেরদৌস খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ ফেব্রুয়ারি রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের যাদুরচর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে চলমান এসএসসি পরীক্ষার গণিত বিষয়ের পরীক্ষা শেষে কিছু বুঝে ওঠার আগে বেশ কিছু পরীক্ষার্থী পরীক্ষাকেন্দ্রে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় কেন্দ্রে অবস্থিত রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপংকর রায়ের সরকারি গাড়িও ভাঙচুর করে পরীক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় স্থানীয় কিছু বহিরাগত তরুণ ও ইন্ধনদাতাও অংশ নেয়। হামলা ও ভাঙচুরে অংশ নেওয়া প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ জন অজ্ঞাতনামা শিক্ষার্থী,বহিরাগত তরুণ ও ইন্ধনদাতাকে অভিযুক্ত করে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি গাড়ির চালক শহিবার রহমান বাদী হয়ে রৌমারী খানায় একটি এজাহার করেন যার নম্বর ৫, তারিখ ১০/০২/২০১৮ খ্রিঃ।

রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ জন অজ্ঞাতনামা শিক্ষার্থী,বহিরাগত তরুণ ও ইন্ধনদাতাকে অভিযুক্ত করে একটি মামলা করা হয়েছে। আমরা তদন্ত শুরু করেছি। সেদিন (১০ ফেব্রুয়ারি) পরীক্ষাকেন্দ্রে ভাঙচুরের কিছু ভিডিও ফুটেজ এবং ছবি আমরা সংগ্রহ করেছি। সামগ্রিক তদন্ত শেষে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপংকর রায় বলেন, ‘আমরা পরীক্ষার্থীদের কোনও রকম আতঙ্কিত না হয়ে পরীক্ষা দিতে বলেছি। ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাধ্যমে এই বার্তা শিক্ষার্থীদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সরকারি সম্পদের ক্ষতির বিষয়ে মামলা হয়েছে, আইন অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এআর/

x