বিষপানে দুই কিশোরীর আত্মহত্যা

রংপুর প্রতিনিধি ১৫:৩৫ , ফেব্রুয়ারি ১৪ , ২০১৮

আত্মহত্যা

রংপুরে দুই বোন বিষপান করে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার মধ্য রাতে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। তারা সম্পর্কে খালাতো বোন। পরিবারের দাবি দুই বোন ঝগড়া করে বিষপান করেছে। কোতয়ালি থানার এস আই ওলিয়ার রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত দুই কিশোরী হলো, ধর্মদাস শেখ পাড়া মহল্লার লিটন মিয়ার মেয়ে লুৎফর নাহার লতা (১৪)। সে স্থানীয় নাজির দিগর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। অপর জন হলো এই মহল্লার আলমগীর হোসেনের মেয়ে সাদিয়া জান্নাত অরনী (১৪)। সে দর্শনা বছিরন নেছা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

এলাকাবাসীর জানায়, দুই বোন একই এলাকার আনছার আলীর ছেলে নগরীর মর্ডান কলেজের অর্নাসের ছাত্র মেরাজুলকে ভালবাসতো। কিন্তু ওই তরুণ তাদের পছন্দ না করে অন্য আরেকটি মেয়েকে ভালোবাসায় তারা সোমবার সকালে এক সঙ্গে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে তাদের আশঙ্কাজনক আহতাবস্থায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার মধ্য রাতে তারা মারা যায়। তবে তাদের স্বজনরা এ কথা অস্বীকার করেছেন।

নিহত অরনীর বাবা আলমগীর জানান, দুই বোন ঝগড়া করে রাগের মাথায় বিষপান করে আত্মহত্যা করেছে। এছাড়া তিনি আর কোনও কথা বলতে রাজি হননি।

রংপুর সিটি করপোরেশনের স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আখতারুজ্জামান ভুট্টু জানান, এলাকাবাসী তাকে জানিয়েছে দুই বোন বিষ পান করে আত্মহত্যা করেছে। এর পর তাদের স্বজনরা মেরাজুল নামে এক যুবককে ধরে নিয়ে মারধর করেছে। এখন ওই যুবক পলাতক রয়েছে।

এ ব্যাপারে কোতয়ালী থানার এস আই ওলিয়ার রহমান জানান,ওই দুই কিশোরী বিষপান করার পর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। তাদের বাবা-মা ও সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা থানায় এসে লিখিত দেয়, যে তাদের কোনও দাবি নেই এবং কারও বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগও নেই। এ কারণে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে দুই কিশোরীর লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে দুপুরে পৌনে ১টার দিকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতা মামুন একদিনের রিমান্ডে


/জেবি/

x