BPO Summit

ধুনটে বাঙালি নদীর চর কেটে বালু বিক্রি করছে প্রভাবশালীরা

নাজমুল হুদা নাসিম, বগুড়া ১২:৫৬ , এপ্রিল ১৬ , ২০১৮

ফরিদপুর গ্রামের বাঙালি নদীর চর থেকে বালু বিক্রি হচ্ছে

বগুড়ার ধুনট উপজেলার বাঙালি নদীর চর কেটে বালু বিক্রি করছে প্রভাবশালীরা। উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের ফরিদপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে এ ঘটনা ঘটছে। এর ফলে নদীর তীরবর্তী ফসলি জমি ভেঙে যাচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করেও কোনও প্রতিকার পাচ্ছেন না। ভুক্তভোগীরা অবিলম্বে এ ব্যাপারে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

তবে চর থেকে বালু বিক্রির সঙ্গে জড়িতরা দাবি করেছেন, ওইসব জমি তাদের পৈতৃক। আর বালু তোলায় অন্য কারও জমির ক্ষতি হচ্ছে না।

জানা গেছে, নিমগাছী ইউনিয়নের বুক চিড়ে প্রবাহিত বাঙালি নদীতে বর্তমানে পানি না থাকায় চর জেগেছে। কিছুদিন ধরে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ফরিদপুর গ্রামে বাঙালি নদীর ঘাট এলাকায় অবস্থান নিয়েছে। তারা চর কেটে অবাধে বালু বিক্রি করছে। প্রতি ট্রাক বালুর দাম ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে। বালু বিক্রি করে তারা লাভবান হলেও এলাকার শতাধিক কৃষকের ফসলি জমি ধসে নদীতে বিলীন হচ্ছে।

ফরিদপুর গ্রামের আজিবর রহমান, মজনু মিয়া ও চাঁন মিয়া জানান- গত কয়েকদিন ধরে একই এলাকার আব্দুল খালেক, আনিছুর রহমান, আপেল মাহমুদ, মাসুদ রানা ও বকুল মিয়াসহ ১০-১২ জন প্রভাবশালী বাঙালি নদীর ঘাটে অবস্থান নিয়েছে। তারা নদীর চর কেটে বালু তুলে বিক্রি করছে। প্রতি ট্রাক ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা দরে প্রতিদিন অন্তত ২০ ট্রাক বালু বিক্রি করা হচ্ছে। ওই চরে গ্রামের অনেকের জমি থাকলেও প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে তারা কথা বলার সাহস পাচ্ছেন না। বালু উত্তোলন করায় ফসলি জমি নদীতে ধসে যাচ্ছে। আর এভাবে নদীর চর কেটে বালু বিক্রি করলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে অনেক জমি নদীতে বিলীন হবে।

তবে চর থেকে বালু বিক্রির সঙ্গে জড়িত নিমগাছী ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আনিছুর রহমান জানান, নদীর চর জেগে ওঠায় নিজেদের জমি থেকে বালু তুলে বিক্রি করছি। এতে আশপাশের ফসলি জমির কোনও ক্ষতি হচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘খোঁজ নিয়ে নদীর চর কেটে বালু বিক্রির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

/এএইচ/

x