বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচন রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ, প্রথম দিনে কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি

বরিশাল প্রতিনিধি ০০:০০ , জুন ১৪ , ২০১৮

বরিশাল সিটি করপোরেশন

বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমানকে এই নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন খানসহ আরও  ১০ জন জেলা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এদিকে, মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও দাখিলের প্রথম দিনে কোনও প্রার্থী তা সংগ্রহ করেননি বলে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্র নিশ্চিত করেছে।

হেলাল উদ্দিন খান ছাড়া বাকি সহকারী রিটার্নিং অফিসারের মধ্যে ভোলা, রাজবাড়ী, ঝালকাঠি, বরগুনা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং বরগুনা সদর, বাকেরগঞ্জ, লালমোহন, মঠবাড়িয়া, পিরোজপুর সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রয়েছেন।

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচনি কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানান, প্রথম দিনে দু-একজন সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র নেওয়ার নিয়ম-কানুন জানতে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে এসেছিলেন। তবে তারা কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি।

তিনি আরও জানান, রিটানিং কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ার পর সিটি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ইতোমধ্যে হালনাগাদ ভোটার তালিকার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। শিগগিরই মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা চূড়ান্ত করে প্রকাশ করা হবে।

নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৩-২৮ জুন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা, ১ ও ২ জুলাই মনোনয়নপত্র বাছাই, ৩-৫ জুলাই আপিল, ৬-৮ জুলাই আপিলের নিষ্পত্তি, ৯ জুলাই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ও ১০ জুলাই প্রতীক বরাদ্দ হবে। প্রতীক বরাদ্দের আগ পর্যন্ত কোনও প্রার্থী নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন না।

মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত ১০টি এবং ৩০টি সাধারণ ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত বরিশাল সিটি করপোরেশনের আয়তন ৫৮ বর্গকিলোমিটার। ৫ লাখ নাগরিক এই নগরীতে বাস করেন।

চূড়ান্ত তালিকা অনুসারে বরিশাল সিটিতে মোট ভোটার ২ লাখ ৪২ হাজার ৭৩০ জন। এর মধ্যে নারী ১ লাখ ২১ হাজার ৪৩৬ জন। পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২০ হাজার ৭৩০ জন।

এদিকে, আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণার পরও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল জানান, তারা এখনও তাদের মেয়রপ্রার্থী চূড়ান্ত করেননি। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আবদুল্লাহের ছেলে মহানগরের যুগ্ম-সম্পাদক সেরনিয়াবাদ সাদেক আবদুল্লাহকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য সুপারিশ করবেন বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে, বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব এবং মহানগর সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, ‘ইতোমধ্যেই বর্তমান নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। এ কমিশনের অধীনে আর কোনও নির্বাচনে যাওয়া হবে কিনা তা দলের কেন্দ্রীয় নেতারা ঠিক করবেন। দল নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে এবং প্রার্থী মনোনয়ন দিলে তার জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করা হবে।’

জাতীয় পার্টির (এরশাদ) জেলা সভাপতি মহসিন উল ইসলাম হাবুল জানান, তাদের দলের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা ইকবাল হোসেন তাপসকে মেয়র পদে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হবে।

বাম মোর্চার পক্ষ থেকে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) জেলা সভাপতি ডা. মণীষা চক্রবর্তী ও জোটের নেতা সিপিবি জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ মেয়র পদের জন্য তাদের প্রার্থিতা ঘোষণা করেছেন।

২০০১ সালের ৪ এপ্রিল ‘বরিশাল সিটি কর্পোরেশন আইন’ পাশ হওয়ার পর ২০০২ সালের ২৫ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে বিভাগীয় সদর বরিশাল সিটি করপোরেশন হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ২০০৩ সালে ২০ মার্চ অনুষ্ঠিত এ সিটির প্রথম নির্বাচনে জয়ী হন বিএনপির বর্তমান কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব এবং মহানগর সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার। ২০০৮ সালের ৪ আগস্ট অনুষ্ঠিত সিটির দ্বিতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শওকত হোসেন হিরন মেয়র নির্বাচিত হন।

 

/এমএ/

x