পদ্মায় প্রবল স্রোতে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত, পাটুরিয়ায় আটকা ৫ শতাধিক যানবাহন

মতিউর রহমান, মানিকগঞ্জ ১৩:০৪ , আগস্ট ১০ , ২০১৮

পদ্মায় প্রবল স্রোতে ফেরি চলাচল বিঘ্নিতপদ্মা নদীতে প্রবল স্রোতের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে যানবাহন পারাপার বিঘ্নিত হচ্ছে। এতে চরম বিপাকে পড়েছেন দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা। যাত্রী ভোগান্তির বিষয়টি বিবেচনা করে যাত্রীবাহী বাস ও ব্যক্তিগত ছোট গাড়িগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে নদী পারাপার করছে ফেরি কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি ) পাটুরিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) খন্দকার মোহাম্মদ তানভীর হোসেন জানান, ‘নদী পথে প্রবল স্রোত এবং মাওয়া ফেরিঘাট দিয়ে চলাচলকারী ট্রাকগুলো এই রুট ব্যবহার করায় যানবাহনের চাপ বেড়ে গেছে। তবে পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় অতিরিক্ত যানবাহন নিয়ন্ত্রণে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উথুলী এলাকা থেকে আরিচা মুখি রাস্তায় পণ্যবাহী ট্রাক সারিবদ্ধভাবে আটকে রাখা হচ্ছে।’পটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ

বিআইডব্লিউটিসি’র ওই কর্মকর্তা বাংলা ট্রিবিউনকে আরও জানান, ‘বর্তমান ফেরি বহরের ১৮টি ফেরির মধ্যে ১৭টি ফেরি পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে চলাচল করছে। কিন্তু নদীতে প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি চলাচলে সময় বেশি লাগছে। যেখানে স্বাভাবিক সময়ে পাটিুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া যেতে  সময় লাগতো ৩০ থেকে ৩৫ মিনিট, বর্তমানে স্রোতের কারণে লাগছে ৫০ মিনিটের মতো। এ কারণে ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে যাচ্ছে। এছাড়া মাওয়া রুটের চ্যানেলে নাব্যতা সংকটের কারনে সেখানে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় ওই রুটের অনেক পণ্যবাহী ট্রাক পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুট ব্যবহার করায় যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে পাটুরিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় আটকে আছে প্রায় সাড়ে তিনশত বিভিন্ন ধরনের পণ্যবাহী ট্রাক।’

এদিকে ফেরি সেক্টরের মেরিন বিভাগের ব্যবস্থাপক আব্দুস সাত্তার জানান, ‘পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের মাঝ পদ্মায় এবং দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় নদীর স্রোত মাত্রাতিরিক্ত। সেখানে স্রোত কম করে হলেও ৫ নটিক্যাল মাইল হবে।  ফেরি বহরের অধিকাংশ ফেরি পুরাতন হওয়ায় এই স্রোতের বিপরীতে চলতে হিমশিম খেতে হয়।’

পাটুরিয়া ফেরি সেক্টরের নির্বাহী প্রকৌশলী (এসআরএস) এনামুল হক অপু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এই রুটে ফেরির সংখ্যা ছিল ১৭টি। আজ শুক্রবার সকালে স্বর্ণলতা নামের নতুন একটি ইউটিলিটি ফেরি যোগ হওয়ায় ফেরির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮টিতে। ফেরি বহরের মধ্যে রো-রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান পাটুরিয়া ঘাটের ভাসমান মেরামত কারখানা মধুমতিতে মেরামতে রয়েছে।’ শিগগিরই এই ফেরিটি নদী পারাপারে যোগ দেবে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।পটুরিয়া ঘাটমুখী যানবাহনের চাপ

পাটুরিয়া ঘাট এলাকার দুটি টারমিনাল ভরপুর রয়েছে ট্রাকে। এছাড়া ঘাট এলাকা থেকে সড়কের দুই কিলোমিটার নবগ্রাম এলাকা পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে ট্রাকের লাইন। যাত্রীবাহী বাসগুলো ঘণ্টাখানেক অপেক্ষার পর নদী পার হওয়ার সুযোগ পেলেও পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে আটকে থাকতে হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘন্টা। ফেরি সংকট ও নদীতে প্রচণ্ড স্রোত থাকার কারণেই এমন ভোগান্তি হচ্ছে বলে জানান ঘাট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

পাটুরিয়া ঘাটে দায়িত্বরত মানিকগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর ( টিআই) রাসেল জানান, ‘যানবাহনের চাপ কিছুটা বৃদ্ধি পেলেও ঘাট এলাকায় যানবাহনের কোনও বিশৃঙ্খলা নেই। সারিবদ্ধভাবে যানবাহনগুলো ফেরিতে করে নদী পার হচ্ছে। যাত্রীবাহী যানবাহন অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করা হচ্ছে।’

এদিকে পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় পণ্যবাহী ট্রাক অতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ার ভোর থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে ঘাট এলাকার ৬ কিলোমিটার দূরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উথুলী এলাকা থেকে আরিচামুখীভাবে সারিবদ্ধভাবে আটকে রাখা হচ্ছে।  পাটুরিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় আটকে থাকা যশোরগামী পণ্যবাহী ট্রাক চালক কামাল হোসেন জানান, ‘যানবাহনের চাপ বেড়ে গেলে আমাদের দুর্ভোগও বেড়ে যায়। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে পাটুরিয়া ফেরিঘাটের টার্মিনালে ঢুকেছি গাড়ি নিয়ে। কখন পার হতে পারবো বুঝতে পারছি না।’

আরও পড়ুন- হজ ফ্লাইট নিয়ে শঙ্কা কাটেনি

/এফএস/

x