জয়পুরহাটে নিরাপত্তাকর্মীকে হত্যা করে এটিএম বুথে ডাকাতির চেষ্টা

জয়পুরহাট প্রতিনিধি ২১:০৭ , আগস্ট ১০ , ২০১৮

জয়পুরহাটের এই এটিএম বুথটি ডাকাতির চেষ্টা করা হয়জয়পুরহাট শহরে নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এটিএম বুথে ডাকাতির চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) দিবাগত রাতের কোনও এক সময় শহরের হাবিব ম্যানশন নামের একটি মার্কেটে স্থাপিত এটিএম বুথে এ ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তরা এসময় এটিএম বুথ ভাঙলেও কোনও টাকা নিতে পারেনি। এদিকে শুক্রবার (১০ আগস্ট) বিকাল তিনটার দিকে হাবিব ম্যানশনের দোতলার একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসের বাথরুম থেকে  নিরাপত্তাকর্মীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত নিরাপত্তাকর্মীর নাম শফিকুল ইসলাম (৩২)। তিনি নওগাঁর বদলগাছি উপজেলার বামনপাড়া গ্রামের মৃত মোতালেব হোসেনের ছেলে।

ব্যাংক সুত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে নিরাপত্তাকর্মী খায়রুল ইসলাম ডিউটি পালন করতে গিয়ে দেখতে পান এটিএম বুথের শাটার গেট তালাবদ্ধ। এ অবস্থায় বুথের রাতের শিফটের নিরাপত্তাকর্মী শফিকুলকে ডাকাডাকি করে না পেলে খায়রুল ব্যাংক ব্যবস্থাপক শাহজালাল সরকারকে বিষয়টি জানান। ব্যবস্থাপক শাটার গেটের চাবি খুলে বুথ ভাঙ্গা দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেন। সকাল ১০টার দিকে পুলিশ এসে বুথ পরিদর্শন করে জানান, সেখানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে পুলিশ পুরো বুথ পরিদর্শন করে জানতে পারেন যে, সেখানে ভাঙচুর করা হলেও দুর্বৃত্তরা টাকার যে ভল্ট সেটা লক্ড অবস্থায় থাকায় ভাঙ্গতে পারেনি। যার কারণে বুথ থেকে কোনও টাকা খোয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুথে রাতের শিফটে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তা কর্মী শফিকুল ইসলাম নিখোঁজ ছিল। বিকাল তিনটার দিকে হাবিব ম্যানশনের দোতলার একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসের বাথরুম থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাতে হত্যার পর তাকে বাথরুমে ফেলে পালিয়ে যায়।

নিরাপত্তা কর্মী খায়রুল ইসলাম বলেন,‘শফিকুলসহ তারা তিনজন নিরাপত্তা কর্মী পালাক্রমে ৮ ঘন্টা ডিউটি পালন করেন। মার্কেটের দোতলায় একটি ফিড ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসের একটি বাথরুম ব্যবহার করেন তারা। ডাকাতির ঘটনার পর বেলা ১২টার দিকে খায়রুল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসে বাথরুম ব্যবহার করতে গেলে দোতলার ওই অফিস তালাবদ্ধ দেখতে পেয়ে খায়রুলের সন্দেহ হয়। সে ব্যাংক ব্যবস্থাপককে জানায় দোতলার বাথরুম তালাবদ্ধ থাকে না। এ সময় মার্কেটের মালিকের কাছ থেকে তারা চাবি নিয়ে এসে পুলিশকে তাদের সন্দেহের কথা জানায়। বেলা ৩টার দিকে পুলিশ ওই অফিসের বাথরুমে গিয়ে শফিকুলকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।

মিউচুয়াল ট্রাষ্ট ব্যাংক জয়পুরহাট শাখার ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাহজালাল সরকার বলেন, ‘বুথে ডাকাতির চেষ্টা করা হয়েছে। জিনিসপত্র ভাঙচুরও করা হয়েছে। দুর্বৃত্তের দল বুথের সিন্দুকের লক খুলতে না পারায় কোনও টাকা লুট করতে পারেনি।’ তিনি বলেন, ‘টেকনিশিয়ান এসে লক খোলার পর আগামী রবিবার এ বিষয়ে শতভাগ নিশ্চিত হওয়া যাবে।’ নিরাপত্তাকর্মী শফিকুল ইসলামের নিহতের বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্ত করছে বলে জানান তিনি।

জয়পুরহাট পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান বলেন, ‘ডাকাতির চেষ্টা করা মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এটিএম বুথ পরিদর্শন করে প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে এর টাকাগুলো দুর্বৃত্তরা লুট করতে পারেনি। কারণ এর লকার লক্ড করা আছে। এটা না খোলা পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না, টাকা লুট হয়েছে কি-না। বেলা তিনটার দিকে আমরা জানতে পারি বুথের নিরাপত্তাকর্মী শফিকুল ওই মার্কেটের দোতলার অন্য একটি অফিসের বাথরুমে মৃত অবস্থায় পড়ে আছে। কিভাবে তাকে দোতলার বাথরুমে নিয়ে আসা হলো, খুনিরা হত্যার পর কিভাবে পালিয়ে গেল, তারা টাকা লুট করতে পেরেছে কি-না সবকিছু আমরা গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখছি।’



/আইএ/

x