দেশের বিভিন্ন স্থানে চলছে উন্নয়ন মেলা

বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক ২১:৪৪ , অক্টোবর ০৪ , ২০১৮


‘উন্নয়নের অভিযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ’ এই স্লোগান উপজীব্য করে দেশের বিভিন্ন স্থানে তিন দিন ব্যাপী ‘জাতীয় উন্নয়ন মেলা ২০১৮’-এর উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই মেলা উদ্বোধন করেন।

এই মেলার মাধ্যমে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড সম্পর্কে সর্বসাধারণের সামনে তথ্য তুলে ধরা হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন জেলা ও থানা পর্যায়ে প্রশাসনের উদ্যোগে স্টল বানিয়ে এসব উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের তথ্য জানানো হচ্ছে।

উন্নয়ন মেলা সম্পর্কে বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

বাগেরহাটের ফকিরহাটে উন্নয়ন মেলা

বাগেরহাটের ফকিরহাটে বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় বাগেরহাট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ডা. মোজাম্মেল হোসেন, বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মীর শওকত আলী বাদশা, বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য তালুকদার হাবিবুননাহার, জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস, পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়সহ জেলার সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উন্নয়ন মেলায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান, শিক্ষার্থী, এনজিও প্রতিনিধি, জনপ্রতিনিধিসহ সকলে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। এ সময় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দুজন উপকারভোগীর সঙ্গে কথা বলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস বাগেরহাট জেলার বিভিন্ন সেক্টরের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। ফকিরহাটে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার ৬৫টি স্টল রয়েছে। দর্শকদের জন্য এসব স্টল উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। এ সময় বিভিন্ন পেশার দুই সহস্রাধিক মানুষ মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখেন।

এছাড়াও বাগেরহাট শহরের শালতলাস্থ জেলা পরিষদ অডিটোরিয়াম চত্বরে ৯২টি স্টল নিয়ে মেলা শুরু হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ মেলার সমাপ্তি ঘটবে। বাগেরহাটের সকল উপজেলায় অনুরূপ উন্নয়ন মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

গোপালগঞ্জে জাতীয় উন্নয়ন মেলা

বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি জেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় পৌরপার্কের মেলা প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়।

পরে সেখানে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব শহিদ উল্লাহ খন্দকার।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ মোখলেসুর রহমান সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, পুলিশ সুপার মো. সাইদুর রহমান খান বক্তব্য রাখেন। এছাড়া জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ রুহুল আমিন, রিপোর্টার্স ফোরাম গোপালগঞ্জের সভাপতি খোন্দকার এহিয়া খালেদ সাদীসহ বিভিন্ন সরকারি দফতরের প্রধানগণ, রাজনৈতিক নেতারা, বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় পৌরপার্কে অনুষ্ঠিত এ উন্নয়ন মেলায় ৭৮টি স্টলে বিভিন্ন দফতরের মাধ্যমে জেলার উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরা হবে। এ মেলা চলবে আগামী ৬ অক্টোবর পর্যন্ত। মেলা চলাকালে আলোচনা সভা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা,সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কুইজ প্রতিযোগিতা ও তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হবে।

এছাড়া জেলার অন্যান্য উপজেলা সদরগুলোতেও অনুরূপ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

বান্দরবানে জাতীয় উন্নয়ন মেলা

মেলা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থে‌কে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ ক‌রে পুনরায় একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। প্রধান অ‌তি‌থি হি‌সে‌বে উপ‌স্থিত থে‌কে মেলার উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম,সেনাবাহিনীর ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার লে. কর্নেল আল আমিন,পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হো‌সেন মজুমদার, ‌পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, পার্বত্য আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য কাজল কা‌ন্তি দাশ, জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষ্মীপদ দাশসহ জেলার সরকারি ও বেসরকারি অ‌ফি‌সের কর্মকর্তারা।

জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্ত্বরে ৩দিন ব্যাপী আয়োজিত মেলায় এবার ৮৪টি স্টল স্থান পে‌য়ে‌ছে। এতে বিভিন্ন সরকারি দফতর ছাড়াও পাহাড়ি সম্প্রদায়ের নানা ধরনের হস্তশিল্প প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। বান্দরবান সদর ছাড়াও জেলার প্রত্যেক উপজেলায় তিন দিন ব্যাপী ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা ২০১৮-এর উদ্বোধন করা হয়ে‌ছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে জাতীয় উন্নয়ন মেলা

এ উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় বের করা হয় বর্ণাঢ্য র‌্যালি। র‌্যালিটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।র‌্যালিতে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দফতরের প্রধানসহ স্কুল, কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। 

বেলা ১১টায় হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বেলুন উড়িয়ে এ মেলার উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব জিল্লার রহমান। পরে সেখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক এজেডএম নুরুল হকের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম, পুলিশ সুপার  টিএম মোজাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ড. চিত্রলেখা নাজনীন প্রমুখ।

হিলিতে জাতীয় উন্নয়ন মেলা

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় হাকিমপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি হিলি স্থলবন্দরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবারও উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হাকিমপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে তিন দিন ব্যাপী জাতীয় উন্নয়ন মেলার শুভ উদ্বোধন করেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুকরিয়া পারভীন, পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত, হাকিমপুর সার্কেলের এএসপি আখিউল ইসলাম, হিলি স্থলবন্দর আমদানি রফতানিকারক গ্রপের সভাপতি হারুন উর রশীদ হারুন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমদাদুল হক চৌধূরী, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহরাব হোসেন, ওসি আনোয়ার হোসেনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

জামালপুরে জাতীয় উন্নয়ন মেলা

জামালপুর জেলা স্কুল মাঠে শুরু হয়েছে তিন দিন ব্যাপী জাতীয় উন্নয়ন মেলা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় জামালপুর জেলা স্কুল মাঠে শুরু হয় ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা-২০১৮। স্থানীয়ভাবে মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় এমপি রেজাউল করিম হীরা প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে এই মেলার উদ্বোধন করেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ চৌধুরী, জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর, পৌর মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম মনি, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ আতিকুর রহমান ছানা, পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেন পিপিএম (বার), সিভিল সার্জন ডা. গৌতম রায়সহ রাজনৈতিক নেতা ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন।

এর আগে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মেলায় বিভিন্ন দফতরের ১২৫টি স্টল দেওয়া হয়েছে। এছাড়া মেলামঞ্চে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

উন্নয়ন মেলা উপলক্ষে সকাল ১০টায় জামালপুর শহরে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়।

ঝিনাইদহে উন্নয়ন মেলা

জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুরাতন ডিসি কোট চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে সরাকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেন। পরে সেখানে ফিতা কেটে ও বেলুন উড়িয়ে উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করা হয়। 

এ মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কনক কান্তি দাস, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধন শেষে অতিথিরা বিভিন্ন দফতরের স্টলগুলো পরিদর্শন করেন। পরির্দশন শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জয়পুরহাটে উন্নয়ন মেলা

মেলা উপলক্ষে সকাল ৯টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কালেক্টরেট মাঠে আয়োজিত মেলায় এসে শেষ হয়।

সকাল দশটায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশব্যাপী মেলা উদ্বোধনের পর জেলা উন্নয়ন মেলার আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জয়পুরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য সামছুল আলম দুদু, মেলায় সমন্বয়ক অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হোসেন,পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান রকেট প্রমুখ। পরে অতিথিরা মেলায় বিভিন্ন দফতরের প্রদর্শিত ১১২টি স্টল পরিদর্শন করেন।

খুলনায় জাতীয় উন্নয়ন মেলা

এ দেশের অগ্রযাত্রাকে গণমানুষের কাছে তুলে ধরতে বৃহস্পতিবার খুলনায় শুরু হয়েছে চতুর্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা-২০১৮। খুলনা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সার্কিট হাউজ মাঠে ৪ থেকে ৬ অক্টোবর চলবে এ উন্নয়ন মেলা। গণমানুষের জনভাবনার বাংলাদেশের সকল অর্জন উপস্থাপন করা হয়েছে সরকারি বেসরকারি দফতরের একশ ৫৬টি স্টলে। সকল দফতর তাদের জনবান্ধব সেবা নিয়ে মেলায় এসেছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের পথে। এসডিজি বাস্তবায়ন কেবল সময়ের ব্যাপার। ২১০০ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত দেশের একটি। উন্নয়ন মেলা যেন তারই একটি প্রতিকৃতি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে সকাল দশটায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে খুলনাসহ দেশের সকল জেলা ও উপজেলায় আয়োজিত চতুর্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেন।

মেলার উদ্বোধনে প্রধান অতিথি ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক, সংসদ সদস্য বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, সংসদ সদস্য মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (এপিডি অনুবিভাগ) শেখ ইউসুফ হারুন, পুলিশ কমিশনার মো. হুমায়ুন কবির, খুলনা অতিরিক্ত ডিআইজি মো. হাবিবুর রহমান, পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আলমগীর কবির। খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন সভাপতিত্ব করেন।

এর আগে সকাল নয়টায় এ উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহীদ হাদিস পার্ক থেকে সার্কিট হাউজ মাঠের মেলা প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে মেলার থিম সং ও বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ পরিবেশন করা হয়। মেলা চলবে প্রতিদিন সকাল নয়টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত।

বগুড়ায় জাতীয় উন্নয়ন মেলা

বগুড়ায় তিন দিনব্যাপী জাতীয় উন্নয়ন মেলা শুরু হয়েছে। শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে মেলার আয়োজন করা হয়। বৃহস্পতিবার  সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশের জেলা উপজেলায় তিন দিনব্যাপী জাতীয় চতুর্থ উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেন।

আয়োজক জেলা প্রশাসনের সূত্র জানায়, বগুড়ার মেলায় ১৫১টি স্টল রয়েছে। এর মধ্যে শতাধিক সরকারি প্রতিষ্ঠানের স্টল রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর বিশাল বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু হেনা রাহমাতুল মুনিম, বগুড়া জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী, পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক আশরাফুজ্জামান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মকবুল হোসেন, পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঁইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন, পল্লী উন্নয়ন একাডেমি বগুড়ার ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক ড. এমএ মতিন প্রমুখ।

বরিশালে জাতীয় উন্নয়ন মেলা

জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সকাল ৯টায় সরকারি জিলা স্কুল প্রাঙ্গণ থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত আউটার স্টেডিয়ামে মেলাস্থলে গিয়ে শেষ হয়।

এছাড়া কেরানীগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, ঈশ্বরদী,মাগুরা,নীলফামারী,পঞ্চগড়,ব্রাহ্মণবাড়িয়া, যশোর,পটুয়াখালীসহ দেশের প্রায় সব স্থান থেকে উন্নয়ন মেলা অনুষ্ঠিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

 

/এমএএ/

x