২৩ ডিসেম্বর ঈদের আনন্দ উদযাপন করবো: দীপু মনি

চাঁদপুর প্রতিনিধি ২৩:০৯ , নভেম্বর ০৮ , ২০১৮

চাঁদপুরে আলোচনা সভায় দীপু মনিআগামী ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচনের দিন ঈদের আনন্দ উদযাপন করবেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণা করেছে। তফসিল অনুযায়ী ছয় সপ্তাহ সময় পাবো। এই ছয় সপ্তাহ আমরা সবার বাড়ি বাড়ি যাবো। কষ্ট করবো। তারপর ২৩ ডিসেম্বর অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট গ্রহণের মাধ্যমে যখন ফল পাবো তখন আমরা ঈদের আনন্দ উদযাপন করবো।’

বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর, রাতে চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে নৌকা প্রতীকের সমর্থনে কয়েকশ নেতাকর্মী চাঁদপুর শহরে আনন্দ মিছিল করেন।

দীপু মনি বলেন, ‘আজকের দিনটি আমাদের জন্য অবশ্যই একটি বিশেষ দিন। শেখ হাসিনা তার তৃতীয় মেয়াদের প্রধানমন্ত্রীত্বকালের সফল পরিসমাপ্তি টানলেন। আজকের এই তফসিল ঘোষণার মধ্য দিয়ে তার তৃতীয় মেয়াদ সম্পন্ন হয়ে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের যাত্রা শুরু হলো। বাংলাদেশের জন্য এটি একটি অনন্য ইতিহাস। শেখ হাসিনার জন্য আমরা সবাই গর্বিত। সারাবিশ্ব অবাক বিস্ময়ে দেখেছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশকে।’

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা যতটুকু প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তার চেয়ে বেশি উন্নয়ন করেছি। সৃষ্টিকর্তার কাছে আমাদের শুকরিয়ার শেষ নেই। তিনি আমাদের এই অনন্য সুযোগ দিয়েছেন। দেশের মানুষের উন্নয়নে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যেতে পেরেছি। দেশের মানুষ আমাদেরকে ভোট দিয়ে সুযোগ দিয়েছেন। এজন্য আমরা তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দীপু মনি বলেন, ‘প্রতিটি ভোটারের কাছে আমি কৃতজ্ঞ, তারা আমাকে ১০ বছর সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। আজ থেকে ছয় সপ্তাহ আমরা পাবো। বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে গত ১০ বছরের সাফল্যগুলো মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে তুলে ধরতে হবে। সেইসঙ্গে বিএনপি-জামায়াত দুষ্টচক্র বাংলাদেশের যে ক্ষতি করেছে, তাদের দুর্নীতি, নাশকতা, মানুষ পুড়িয়ে মারা, এতিমের অর্থ আত্মসাৎ করাসহ যত অপরাধ সেগুলোও মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে। তাদের দুঃশাসনের কথা বিনয়ের সঙ্গে মানুষের মনে করিয়ে দিতে হবে। মানুষ যেন এই অপশক্তিকে আর ভোট না দেন। তারা যেন শান্তি-সমৃদ্ধি-উন্নয়নের গণতন্ত্রের মার্কা নৌকাকে ভোট দেন।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন— জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক তাফজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, শাহীর হোসেন পাটওয়ারী, মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক হানিফ পাটওয়ারী, শিক্ষা ও মানবকল্যাণ-বিষয়ক সম্পাদক জিল্লুর রহমান জুয়েল, কৃষিবিষয়ক সম্পাদক অজয় কুমার ভৌমিক, সহদফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট রনজিত রায় চৌধুরী প্রমুখ।

 

/আইএ/

x