খুলনা বিভাগে ৭৭৪৪০ ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা চূড়ান্ত

খুলনা প্রতিনিধি ১৫:৪২ , নভেম্বর ০৯ , ২০১৮

ভোটজাতীয় নির্বাচনের জন্য খুলনা বিভাগের দশ জেলার ৩৬টি আসনে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তার তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত করা এ তালিকায় ৭৭ হাজার ৪৪০ জন কর্মকর্তা রয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছেন ৪ হাজার ৮৩৪ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ২৪ হাজার ২০২ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ৪৮ হাজার ৪০৪ জন পোলিং অফিসার। খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে তিনটি কেন্দ্রে অনিয়মের দায়ে অভিযুক্ত ৫৭ জন কর্মকর্তাকে এ তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

খুলনার নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান বলেন, ‘উপজেলা ও জেলা থেকে আগেই ভোটগ্রহণ কর্মকর্তার নাম ও তালিকা নেওয়া হয়েছে। যা সমন্বয় করে চূড়ান্ত রূপ দেওয়া হয়েছে। তফসিল ঘোষণার মধ্য দিয়ে নির্বাচনি প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত ধাপের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।’

খুলনা আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বিভাগের ১০ জেলায় ৪ হাজার ৮৩৪টি কেন্দ্র ও ২৪ হাজার ২০২টি ভোট কক্ষ চূড়ান্ত করা হয়েছে। দশম সংসদের তুলনায় ২৫২টি কেন্দ্র ও ৮৩৪টি কক্ষ বেড়েছে। প্রত্যেক কেন্দ্রে একজন প্রিজাইডিং অফিসার, প্রত্যেক কক্ষে দুইজন করে সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং প্রত্যেক কক্ষে দুই জন করে পোলিং অফিসার হিসেবে ৩৬টি আসনে ৭৭ হাজার ৪৪০ জন ভোট গ্রহণ কর্মকর্তার তালিকা করা হয়েছে। খুলনা বিভাগের ৩৬টি আসনে এবারে ভোটার সংখ্যা ১ কোটি ১৬ লাখ ১১ হাজার ৫৬৩ জন।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, কেসিসি নির্বাচনে ২৪ নং ওয়ার্ডের ইকবাল নগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ৩১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিল কার্যালয় ও একই ওয়ার্ডের লবনচরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে শতভাগ ভোট জালিয়ারি হওয়ায় রিটার্নিং অফিসার এ সব কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করেন। বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা হওয়ায় এই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে রিটার্নিং অফিসার নির্বাচন কমিশনকে জানান। নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের আলোকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, উল্লিখিত কেন্দ্র সমূহের কর্মকর্তাদের এক বছরের ইনক্রিমেন্ট বন্ধ, পদোন্নতি স্থগিত ও পরবর্তিতে ভোটকেন্দ্রের দায়িত্ব পালন থেকে বিরত রাখতে পরামর্শ দেয়। সে আলোকে জেলা নির্বাচন অফিস কেসিসি নির্বাচনে বিতর্কিত ৫৭ জন ভোট কর্মকর্তাকে বাদ দিয়ে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তার তালিকা প্রস্তুত করেছে।

আরও পড়ুন- একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন: ভোট ২৩ ডিসেম্বর

 

/এফএস/

x