ওসি মোয়াজ্জেমকে পুরস্কৃত করা দরকার ছিল, দাবি পরিবারের

রফিকুল ইসলাম, ফেনী ১৮:৩৪ , জুন ১৭ , ২০১৯

আদালতে ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন (ছবি: ফোকাস বাংলা)ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাতকে জিজ্ঞাসাবাদের দৃশ্য ভিডিও করার জন্য সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে পুরস্কৃত করার দাবি করেছে তার পরিবার। তার ভাই আরিফুজ্জামান খন্দকার ও মা মনোয়ারা বেগমের দাবি, নুসরাতকে জিজ্ঞাসাবাদের ঘটনা ভিডিওতে ধারণ করার কারণেই সিরাজ উদ দৌলাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছিল। সোমবার (১৭ জুন) বিকালে মোবাইল ফোনে বাংলা ট্রিবিউন প্রতিনিধির কাছে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তারা এই দাবি করেন।

আরিফুজ্জামান খন্দকার বলেন, ‘নুসরাত হত্যার মূল মামলা বাদ দিয়ে আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে দায়ের করা সাইবার ক্রাইম মামলা নিয়ে বেশি তোড়জোড় করা হচ্ছে। অথচ আলোচিত ওই ভিডিওটিই নুসরাতের দেওয়া বড় ডকুমেন্ট। এই ভিডিও’র ভিত্তিতে আমার ভাই অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে গ্রেফতার করেছিল, সে জন্য আমার ভাইকে পুরস্কৃত করা উচিত ছিল।’

মোয়াজ্জেমের ভাই বলেন, ‘নুসরাতকে যৌন হয়রানির ঘটনায় নেওয়া ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনার সঙ্গে কোনোভাবেই আমার ভাই জড়িত নয়। নুসরাত হত্যার প্রধান আসামি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা ক্ষমতাধর ব্যক্তি। আত্মরক্ষার্থে তার বিরুদ্ধে ভিকটিমের বক্তব্য আমার ভাই তার ফোনে  ভিডিও করেছিলেন, এটা ঠিক। সেই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কখনও প্রকাশ করেননি আমার ভাই। পিবিআইর প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, স্থানীয় একন সাংবাদিক আতিয়ার হাওলাদার সজল সেটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। এ ব্যাপারে সোনাগাজী মডেল থানায় করা জিডিতে আমার ভাইয়ের ফোন থেকে কীভাবে ওই টিভি সাংবাদিক ভিডিওটি চুরি করে নিয়ে ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সাবেক সভাপতি ডা. ফখরুদ্দিনকে দেন, পরে ওই সাবেক শিবির নেতা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে যে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন, তার বিস্তারিত বর্ণনা রয়েছে। জিডির তদন্ত প্রতিবেদনে এর প্রমাণ রয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই দেশে একই আইনে আমার ভাই জেলে গেলেন। আর ওই সাংবাদিক আইনের ঊর্ধ্বে থেকে গেলেন। এখন সেই সাংবাদিক মামলার বাদী ব্যারিস্টার সুমনের সঙ্গে সেলফি তুলে আমার ভাইয়ের গ্রেফতারে উৎসব করছেন।’ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন

ওসি মোয়াজ্জেমের মা মনোয়ারা বেগম বলেন, ‘আমার ছেলের দোষ নেই। বিনা অপরাধে তাকে জেল খাটানো হচ্ছে। তাকে দ্রুত মুক্তি দিতে আদালতের সহানুভূতি চাই।’

এদিকে, সাংবাদিক আতিয়ার হাওলাদার সজল বলেন, ‘ওসি মোয়াজ্জেমের মোবাইল ফোনসেট থেকে চুরি করে ভিডিও সংগ্রহ করা এবং তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানোর কথা একেবারেই ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। ওসি নিজেই ওই ভিডিও ধারণ করেন এবং তা বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীদের সরবরাহ করেন। তিনি তা প্রচারেরও অনুরোধ জানিয়েছেন।’

এদিকে, নুসরাত জাহান রাফির আনা যৌন হয়রানির অভিযোগ নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের ঘটনা ভিডিওতে ধারণ এবং তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার মামলায় ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন। একই সঙ্গে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য পরবর্তী তারিখ আগামী ৩০ জুন নির্ধারণ করেন আদালত।

উল্লেখ্য, ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে তার মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী থানায় সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরপর অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের নামে নুসরাতের বক্তব্য ভিডিও করেন ওসি মোয়াজ্জেম। পরে সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েও দেওয়া হয়।

ভিডিও করে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ১৫ এপ্রিল ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা দায়ের করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন। বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ ও মামলার নথি পর্যালোচনা করে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন ২৭ মে ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন। পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর রবিবার (১৬ জুন) ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে হাইকোর্ট এলাকা থেকে গ্রেফতার করে শাহবাগ থানা পুলিশ।

পুলিশ সদর দফতরের তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশ অনুযায়ী, গত ৮ মে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে রংপুর রেঞ্জে সংযুক্ত করা হয়। মে মাসের তৃতীয় সপ্তাহে তিনি রংপুর রেঞ্জ অফিসে যোগ দেন।

এর আগে, গত ৬ এপ্রিল এইচএসসি সমমানের আলিম আরবি প্রথমপত্রের পরীক্ষা দিতে গেলে দুর্বৃত্তরা নুসরাত জাহান রাফিকে ছাদে ডেকে নিয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে ও পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে গত ১০ এপ্রিল নুসরাত মারা যান।

আরও পড়ুন-

ঢাকায় খালার বাসায় ওসি মোয়াজ্জেমের ‘পলাতক’ জীবন

এতদিন জামিনের আশায় ছিলেন ওসি মোয়াজ্জেম
ওসি মোয়াজ্জেম ঢাকায় গ্রেফতার

 

/এফএস/এমএনএইচ/এমওএফ/

x