গাইবান্ধায় বন্যার পানিতে ডুবে আরও দুই শিশুর মৃত্যু

গাইবান্ধা প্রতিনিধি ২২:২১ , জুলাই ২১ , ২০১৯

পানিতে ডুবে গেছে শিশু

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বন্যার পানিতে ডুবে আরও  দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তারা হলো, নিশাত রহমান (২) ও জান্নাতি খাতুন (১০)।

রবিবার (২১ জুলাই) দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জের জিরাই গ্রামে ও গুমানিগঞ্জ ইউনিয়নের খরায়া গ্রামে ঘটনা দুটি ঘটে।

এ নিয়ে গত কয়েকদিনে বন্যার পানিতে ডুবে জেলায় পাঁচ শিশুসহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নিশাত রহমান গুমানিগঞ্জ ইউনিয়নের খরিয়া গ্রামের প্রবাসি শাহ আলমের ছেলে ও জান্নাতী খাতুন মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের জিরাই গ্রামের আবদুল মজিদের মেয়ে। জান্নাতি মহিমাগঞ্জ ২নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী।

স্থানীয়রা ও নিহতের স্বজনরা জানান, দুপুরে বাড়ির উঠানে শিশু নিশাতকে রেখে কাজ করছিল তার মা। কিন্তু হঠাৎ করেই নিশাতকে উঠানে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে বাড়ির পাশে বন্যার পানিতে নিশাতকে ভাসতে দেখতে পাওয়া যায়। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক নিশাতকে মৃত ঘোষণা করে।

শিশু নিশাতের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ প্রধান ।

এদিকে, জান্নাতীর এক স্কুল শিক্ষক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে অন্য শিশুদের সঙ্গে বাড়ির পাশে বন্যার পানিতে গোসল করতে নামে জান্নাতি। গোসলের একপর্যায়ে জান্নাতি পানিতে ডুবে গেলে তার সঙ্গে থাকা শিশুরা চিৎকার করতে থাকে। পরে আশপাশের লোকজন এসে জান্নাতির লাশ উদ্ধার করে।

এনিয়ে চলমান বন্যায় গত সাতদিনে পানিতে ডুবে সদর, সাঘাটা ও গোবিন্দগঞ্জে পাঁচ শিশুসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়। এরমধ্যে গোবিন্দগঞ্জে শিশুসহ চারজন, সদরে এক ও সাঘাটা উপজেলায় এক শিশুর মৃত্যু হয়।

এছাড়া বন্যার পানিতে কাজ করতে নেমে সাপের কামড়ে উজ্জল কুমার নামে এক কিশোর এবং বন্যার পানিতে ভেলা চলাচলের সময় হাতে থাকা লাঠি বিদ্যুতের তারে লেগে সদর উপজেলার খোলাহাটির শোনারপাড়ার রিপন মিয়া নামে এক যুবকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

 

 

/টিএন/

x