বিমান ছিনতাইচেষ্টা মামলায় অভিনেত্রী শিমলাকে জিজ্ঞাসাবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম ১৬:৪৭ , সেপ্টেম্বর ১২ , ২০১৯





সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন অভিনেন্ত্রী শিমলাচট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে ময়ূরপঙ্খী বিমান ছিনতাইচেষ্টার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় অভিনেত্রী শিমলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) নগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট অফিসে এ জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক (কাউন্টার টেরোরিজম) রাজেশ বড়ুয়া এ তথ্য জানিয়েছেন।
প্রসঙ্গত, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৫টা ১৩ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বিমান ময়ূরপঙ্খী। উড্ডয়নের ১৫ মিনিট পর পলাশ আহম্মেদ নামে এক যুবক বিমানটি ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন। ৫টা ৪১ মিনিটে বিমানটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এ সময় কমান্ডো অভিযানে পলাশ নিহত হন। তিনি অভিনেত্রী শিমলার সাবেক স্বামী ছিলেন। বিমান ছিনতাইচেষ্টার সময় পলাশের কাছে শিমলা ও পলাশের বিয়ের কয়েকটি ছবি পাওয়া যায়। পরে এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় শিমলাকে আসামি করা হয়।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রাজেশ বড়ুয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সকাল ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত শিমলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে পলাশের সঙ্গে তার কীভাবে পরিচয় হয়, বিয়ে কখন হয়, তালাক কখন হয়, সংসার করার সময় পলাশের আচার-আচরণ কেমন দেখেন—এসব বিষয় জানার চেষ্টা করেছি।’ তিনি বলেন, ‘শিমলা পুলিশকে জানিয়েছেন, ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর গুলশানের একটি রেস্তোরাঁয় জন্মদিনের একটি অনুষ্ঠানে পলাশের সঙ্গে তার পরিচয়। ওই অনুষ্ঠানে দুজন মোবাইল ফোন নম্বর আদান প্রদান করেন। এরপর দু’জনের মধ্যে নিয়মিত কথা হতো। পরে ২০১৮ সালের ৩ মার্চ তারা বিয়ে করেন। ৯ মাস সংসার করার পর একই বছরের নভেম্বরে তাদের ডিভোর্স হয়।’

জিজ্ঞাসাবাদের পর কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অফিস থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন অভিনেত্রী শিমলা। তিনি বলেন, ‘বিমান ছিনতাইচেষ্টা একটি দুঃখজনক ঘটনা। উনার (পলাশ) হীন মানসিকতা ছিল, তাই এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। আমি উনাকে ডিভোর্স দিয়েছি। মেনটালি ডিস্টার্ব কিছু মানুষ থাকে, উনাকে তেমন মনে হয়েছে।’

বিমান ছিনতাইচেষ্টার সময় পলাশ আপনাদের বিয়ের কিছু ডকুমেন্ট রেখেছিলেন। এটা কেন রেখেছিলেন জানতে চাইলে শিমলা বলেন, ‘খোদা জানে। এখন উনি তো মারা গেছেন। এটা আমি কীভাবে বলবো।’

/আইএ/

x