মেয়েকে উত্ত্যক্ত করায় যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ১৪:১৩ , অক্টোবর ২২ , ২০১৯

লাশএক কিশোরীকে উত্ত্যক্ত করায় যুবক মামুন বেপারি (২২)-কে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছেন ওই কিশোরীর বাবা। সোমবার রাত সাড়ে ৮টায় ডামুড্যা উপজেলার বড় নওগাঁ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ। ডামুড্যা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ডামুড্যা উপজেলার পূর্ব ডামুড্যা ইউনিয়নের বড় নওগাঁ গ্রামের সাহেব আলী মাল ও জলিল বেপারি পরস্পরের প্রতিবেশী। জলিল বেপারির ছেলে মামুন বেপারি (২২) দীর্ঘদিন ধরে সাহেব আলী মালের মেয়ে শম্পা আক্তারকে (১৪) উত্ত্যক্ত করে আসছিল। সোমবার সন্ধ্যায় শম্পাকে বাড়ির পাশে একা পেয়ে মামুন প্রেমের প্রস্তাব দেয় এবং একপর্যায়ে জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করে। এ সময় শম্পা দৌড়ে বাড়িতে গিয়ে তার বাবাকে ঘটনা জানায়। এরপর শম্পার বাবা মামুনের বাসায় গিয়ে নালিশ করে। এ সময় মামুন ক্ষিপ্ত হয়ে তার সঙ্গে কথাকাটাকাটি করে। একপর্যায়ে সাহেব আলী মাল উত্তেজিত হয়ে ঘর থেকে ছুরি এনে মামুনের পেটে ঢুকিয়ে দেন। এ সময় মামুনও দা এনে সাহেব আলী মাল ও তার ভাই বিল্লাল মালকে আঘাত করেন। একপর্যায়ে মামুন মাটিতে পড়ে গেলে তাকে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নেওয়ার পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় সাহেব আলী মাল (৩৮) ও তার ভাই বিল্লাল মালকে (১৯) ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে আটক করেছে পুলিশ।

মামুনের বাবা জলিল বেপারি বলেন, ‘আমার ছেলেটা অপরাধ করেছে এটা আমি মানি। কিন্তু সেই জন্য ছেলেটাকে কুপিয়ে মেরে ফেলতে হবে ? আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই।’

ডামুড্যা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই জনকে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

/জেবি/এমওএফ/

x