অটোরিকশা চালকের মামলা: শাকিবকে বাদ দিয়ে প্রতিবেদন

মোহাম্মদ নূর উদ্দিন, হবিগঞ্জ ১৪:২৩ , মার্চ ১৪ , ২০১৮

শাকিব খান (ছবি- সংগৃহীত)হবিগঞ্জে চিত্রনায়ক শাকিব খানের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও মানহানির অভিযোগে অটোরিকশা চালকের মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। তবে মূল অভিযুক্তদের একজন নায়ক শাকিব খানকে এতে রাখা হয়নি। তাকে বাদ দিয়ে পরিচালক ও প্রযোজকের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে।
বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের ওসি শাহ আলম হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শম্পা জাহানের কাছে এই প্রতিবেদনটি দেন। এতে ‘রাজনীতি’ সিনেমার প্রযোজক আশফাক আহমেদ ও পরিচালক বুলবুল বিশ্বাসের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। আদালত প্রতিবেদনের ওপর আগামী ১০ মে শুনানির দিন ধার্য করেছে।

এ ব্যাপারে মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী এডভোকেট এম এ মজিদ বলেন, ‘মামলার মূল অভিযুক্ত চিত্রনায়ক শাকিব খানকে বাদী হয়ে একটি ফরমায়েশি প্রতিবেদন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে দাখিল করেছেন। আমরা প্রতিবেদন সন্তুষ্ট হতে পারছি না। তাই এর বিরুদ্ধে আগামী ধার্য তারিখে নারাজি দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি।’রাজনীতি ছবির গানের দৃশ্য। এর আগেই নম্বরটি বলেন শাকিব। পাশে ইজাজুল
মামলার বাদী অটোরিকশা চালক ইজাজুল মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আদালতের প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দিতে আমার আইনজীবীর সঙ্গে পরামর্শ করছি। এখন আমরা সে প্রস্তুতিই নিচ্ছি।’
এদিকে, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের ওসি শাহ আলম জানান, যেহেতু সিনেমাটি সেন্সরবোর্ড থেকে অনুমোদনের সময় দায়ভার পরিচালক ও প্রয়োজক গ্রহণ করে থাকেন; এ জন্য এর দায়ভার পরিচালক প্রয়োজককেই গ্রহণ করতে হয়। তাই তদন্ত প্রতিবেদনে ঘটনার নেপথ্যে নায়কের সংশ্লিষ্টতা খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ কারণে নায়ককে বাদ দিয়ে পরিচালক ও প্রযোজকের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত ২৯ অক্টোবর হবিগঞ্জের আদালতে ৫০ লাখ টাকার মানহানির অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন ইজাজুল মিয়া নামের এক অটোরিকশা চালক। এর আগে শাকিব ভক্তদের মোবাইল ফোনে অতিষ্ঠ হয়ে ইজাজুল গত ২৮ অক্টোবর বানিয়াচং থানায় ‘রাজনীতি’ সিনেমার প্রযোজক আশফাক আহমেদ, পরিচালক বুলবুল বিশ্বাসের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়রি করেন। নায়ক শাকিব খান ‘রাজনীতি’ ছবিতে নায়িকা অপু বিশ্বাসকে যে গ্রামীণফোনের মোবাইল নম্বরটি দেন, সেটি কাকতালীয়ভাবে হবিগঞ্জর বানিয়াচং উপজেলার যাত্রাপাশা গ্রামের ইজাজুল মিয়ার মোবাইল নম্বর।
‘রাজনীতি’ ছবির শাকিব ও অপুর সেই মুহূর্তটি: 

এ ঘটনাই ইজাজুলের জীবনে কাল হয়ে দাঁড়ায়। প্রতিদিন শাকিব ভক্তদের ৭ থেকে ৮শ’ ফোন কল আসতে থাকে তার মোবাইল ফোনে। অপরিচিত মেয়েদের কাছ থেকে সারাদিন ফোন আসতে থাকায় পারিবারিক জীবনেও অশান্তির সৃষ্টি হয়। স্বামী পরকীয়ায় আসক্ত সন্দেহে স্ত্রী মিশু আক্তার ১৬ মাস বয়সী একমাত্র শিশু কন্যা ইমুকে নিয়ে বাবা বাড়িতে চলে যান। অন্যদিকে, একের পর এক কল আসায় সিএনজির মালিক বাদল মিয়া ফোন করে সময় মতো ইজাজুলকে না পেয়ে তাকে চালকের চাকরি থেকে বাদ দেন। 

/এম/

x