৪৬ বছর পর পিলু খানের প্রথম অ্যালবাম!

বিনোদন রিপোর্ট ১৫:১৮ , জুলাই ১১ , ২০১৮

পিলু খান১৯৭২ সালে প্রথম মঞ্চ পরিবেশনায় অংশ নিয়েছিলেন সংগীতশিল্পী পিলু খান। বয়সটা ছিল ১১। এরপর সত্তরের দশকের কনসার্টগুলোতে নিয়মিত ড্রামস বাজিয়েছেন। ১৯৭৮-৭৯ সালের দিকে যোগ দেন ব্যান্ড সোলস-এ। ১৯৮৫ সাল থেকে শুরু করেন ব্যান্ড রেনেসাঁ’র কার্যক্রম। তখন থেকে এখন পর্যন্ত এই দলটির সঙ্গেই আছেন তিনি। বাজাচ্ছেন ড্রামস, মাঝে মধ্যে মেলাচ্ছেন কণ্ঠও।
এবার এই সংগীতশিল্পী নিয়ে আসছেন তার গাওয়া প্রথম অ্যালবাম। নাম ‌‘তোমরা ভালো আছো তো?’ আর এ অ্যালবামটির গান লেখাসহ নেপথ্যে আছেন খ্যাতিমান গীতিকার শহীদ মাহমুদ জঙ্গী।
পিলু খান ও শহীদ মাহমুদ জঙ্গী (বাঁ থেকে)জঙ্গীর কথায় পিলুর সুর করা জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে ‘আজ যে শিশু’, ‘সময় যেন কাটে না’ প্রভৃতি। ‘রেনেসাঁ’র জন্য ‘হৃদয় কাদামাটির কোনও মূর্তি নয়’সহ আরও অনেক গান লিখেছেন জঙ্গী।
সংগীত ক্যারিয়ারের প্রায় ৪৬ বছর পর নিজের গাওয়া প্রথম অ্যালবাম তৈরি প্রসঙ্গে পিলু খান বললেন, ‘আমি তো আর সেভাবে গায়ক নই। প্রয়োজনে গান গাইলেও সুর-সংগীত নিয়েই বেশি ব্যস্ত থেকেছি। তাই অ্যালবাম তৈরির দিকে সেভাবে গুরুত্ব দিতে পারিনি। পরে শহীদ মাহমুদ জঙ্গীর কারণে অ্যালবামটি করলাম।’
অ্যালবাম তৈরির কারণ হিসেবেও জঙ্গীর অনুপ্রেরণাকে উল্লেখ করলেন পিলু খান।
‘শহীদ মাহমুদ জঙ্গীর গান মানেই বিশেষ কিছু। আর এ অ্যালবামটি করতে তিনিই আমাকে চরমভাবে উদ্বুদ্ধ করেছেন। তাই ক্যারিয়ারের এত বছর পর প্রথম অ্যালবাম করতে যাচ্ছি।’
জানালেন অ্যালবামে গান থাকছে ৮টি। আটটি গানের সবই সুর করেছেন পিলু খান। সংগীতায়োজনে সুমন কল্যাণ। তিনটি গানে পিলুর সঙ্গে দ্বৈত গেয়েছেন সামিনা চৌধুরী। গানগুলো হলো ‘উল্টেপাল্টে’, ‘হৃদয়ের নীল’ এবং ‘এসো হে বন্ধু’। ‘এলাম প্রথমবার’ গানটি গেয়েছেন ফাহমিদা নবীর সঙ্গে।
বাকি চারটি পিলুর একক—‘আমার গল্প আঙিনায়’, ‘হাজারো দুঃখ নিয়ে’, ‘সবকিছু শেষ হলে’ এবং ‘তুমি জানো কি?’।
সম্প্রতি রেকর্ডিং শেষ হওয়া এই অ্যালবামটি বাংলা ঢোলের ব্যানারে প্রকাশ পাবে আসছে ঈদে।

/এম/এমএম/চেক-এমওএফ/

x