প্রশংসিত ‘মীনালাপ’

বিনোদন রিপোর্ট ১০:০৫ , জুলাই ১২ , ২০১৮

নির্মাতা ও ‘মীনালাপ’ চলচ্চিত্রটির একটি দৃশ্য

ব্যতিক্রমী এক গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে বাংলাদেশি নির্মাতা সুবর্ণা সেঁজুতি টুসির স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‌‘মীনালাপ’।

পশ্চিমবঙ্গের একটি প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে পুনে শহরে আসা গার্মেন্টসে কর্মরত এক বাঙালি দম্পতির অনাগত সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার আগ মুহূর্তগুলো চলচ্চিত্রটিতে উঠে এসেছে। তবে তা একটু অন্যভাবে। আর এটি ছিল চমকপ্রদ।

এবার ছবিটির জন্য ১৪তম ইউরেশিয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে গ্রান্ডপিক্স পুরস্কার জিতেছেন নির্মাতা সুবর্ণা সেঁজুতি টুসি। গত ৬ জুলাই শেষ হওয়া এ আয়োজন ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফিল্ম প্রডিউসার অ্যাসোসিয়েশন স্বীকৃত এশিয়ার পূর্ণদৈর্ঘ্য ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের সর্ববৃহৎ উৎসব।
এই প্রথম উপমহাদেশের কোনও নির্মাতার চলচ্চিত্র এই উৎসবে পুরস্কৃত হলো। সুবর্ণা সেঁজুতি টুসি বলেন, ‘ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়ায় চলচ্চিত্র নির্মাণ ও চিত্রনাট্য রচনার ওপর আমি একটি ডিপ্লোমা কোর্স সম্পন্ন করেছিলাম। তখনই তাদের তত্ত্বাবধানে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করা। এটির এমন সাফল্যে আমি নিজেও বেশ চমকিত।'
২৮ মিনিট দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র ‘মীনালাপ’-এর কাহিনিটি শহুরে নিঃসঙ্গ জীবনের মুহূর্তগুলো নিয়ে। ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইন্সটিটিউট অফ ইন্ডিয়ার প্রযোজনায় চলচ্চিত্রটি পরিচালনার পাশাপাশি চিত্রনাট্যও করেছেন সুবর্ণা সেঁজুতি টুসি। ছবিটির প্রধান চরিত্রগুলোতে আছেন তিতাস দত্ত, প্রমিত দত্ত, বিবেক কুমার ও দেভাস দীক্ষিত।

/এম/ চেক-এমওএফ/

x