তনুশ্রীর অভিযোগে নানাকে নোটিশ

বিনোদন ডেস্ক ১৭:৩১ , অক্টোবর ১১ , ২০১৮

তনুশ্রী ও নানা পাটেকারতনুশ্রী দত্তের যৌন হয়রানির অভিযোগের সূত্র ধরে নানা পাটেকারকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছে মহারাষ্ট্র রাজ্য নারী কমিশন।
নোটিশে জানানো হয়, ১০ দিনের মধ্যে কমিশনে হাজির হয়ে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের ব্যাখ্যা দিতে। একই সঙ্গে যৌন হয়রানির অভিযোগগুলোর তদন্তের অগ্রগতি কমিশনকে জানাতে মুম্বাই পুলিশকেও চিঠি দেওয়া হয়েছে।

২০০৮ সালে ভারতের একজন অভিনেতার মাধ্যমে এমন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছিলেন বলে অভিযোগ তুনশ্রীর। তখন ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি গানের শুটিং করছিলেন তারা। 

জুম টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তনুশ্রী অকপটে জানান অভিযুক্তর নাম অভিনেতা নানা পাটেকার।

তনুশ্রীর অভিযোগ, নানা পাটেকার তাকে পেছন দিক থেকে জড়িয়ে ধরেছিলেন। এরপর সামনে নিয়ে নৃত্য পরিচালককে সরিয়ে তাকে দেখাচ্ছিলেন কীভাবে নাচতে হয়। এমনকি তার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। যদিও চুক্তি অনুযায়ী সেটি ছিল ৩৪ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর একক গানের দৃশ্য।
অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তর অভিযোগের পর একে একে বেরিয়ে আসছে বলিউডে যৌন হয়রানির নানা ঘটনা। যার সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন বলিউড তারকারাও।

তনুশ্রী দত্তের পর কঙ্গনা রনৌতও এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছেন বলে বোমা ফাটিয়েছেন। ‘কুইন’ ছবির পরিচালক বিকাশ বলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তিনি।
‘কুইন’ ছবিতে বিকাশ বলের সঙ্গে কাজ করা রাজকুমার রাও বলেন, ‘নারীকে সব ধরনের হয়রানির বিরুদ্ধে কাজ করতে বলিউডের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।’ ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনও বলিউডে ‘মি টু’ হ্যাশট্যাগ আন্দোলনকে স্বাগত জানিয়েছেন। নির্মাতা অনুরাগ কাশ্যপ বলেছেন, ‘পুরুষ হওয়ার জন্য আমি লজ্জিত।’
এদিকে ‘কুইন’ পরিচালক বিকাশ বল বলেছেন, পেশাগত হিংসা থেকেই তার বিরুদ্ধে অনুরাগ কাশ্যাপ ও বিক্রমাদিত্য উঠেপড়ে লেগেছেন। তার মতে, এখন দ্রুতই কিছু ঘটনার বিচারের ব্যবস্থা করা উচিত।
বলিউডের তিন নির্মাতা অনুরাগ কাশ্যাপ, বিক্রমাদিত্য মোতওয়ানে ও মধু মান্টেনার সঙ্গে বিকাশ বলের ফ্যান্টম ফিল্মস নামে একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ছিল। যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর ৬ অক্টোবর এটি বন্ধের ঘোষণা দেন অনুরাগ। তারও আগে প্রতিষ্ঠানটির একজন নারী কর্মী গত বছর অভিযোগ তোলেন গোয়ায় বেড়ানোর সময় তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছেন বিকাশ।

সম্প্রতি হাফিংটন পোস্ট ইন্ডিয়ার একটি প্রতিবেদনে আবারও একই অভিযোগ তোলেন ওই নারী। একইসঙ্গে গোয়ায় ঘটে যাওয়া ঘটনার আরও বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি। তার দাবি, ২০১৫ সালের অক্টোবরে অনুরাগ কাশ্যাপকে এ বিষয়ে জানালেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। উল্টো বিকাশ তাকে লাগাতার হয়রানি করে যাচ্ছিলেন। এ কারণে শেষ পর্যন্ত চাকরি ছাড়তে বাধ্য হন ওই নারী।
কঙ্গনা ও বিকাশ বলপ্রতিবেদনটি ভাইরাল হওয়ার পর বিকাশ বলের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন কঙ্গনা। তিনি এসব অভিযোগের সত্যতা বিশ্বাস করেন। তবে ৩১ বছর বয়সী এই তারকার মন্তব্য, ‘দুঃখজনক হলো, মানুষ এখন তার বিরুদ্ধে আঙুল তুলছে। ফ্যান্টম ফিল্মস বন্ধের ঘোষণাও এসেছে। অথচ তিন বছর আগে ওই নারী এত করে সহযোগিতা চাওয়ার পরও কিছু বলা হয়নি অভিযুক্তকে। আয়নায় এবার নিজেদের দেখুন, কাপুরুষের দল।’
এদিকে তার অভিযোগের পর ক্রমাগত যৌন হয়রানির ঘটনা প্রকাশ পাওয়ায় খুশি তনুশ্রী দত্ত। তিনি বলেন, ‘সবাই জেগে উঠেছে। এটা দারুণ ব্যাপার।’
অন্যদিকে একের পর এক যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠায় নড়েচড়ে বসেছে বলিউড প্রডিউসার গিল্ড। ১০ অক্টোবর মুম্বাইতে নিজেদের করণীয় ঠিক করতে জরুরি আলোচনায় বসে সংগঠনটি, যেখানে স্ত্রী কিরণ রাওয়ের সঙ্গে যোগ দেন আমির খানও।

/এমএম/এমওএফ/

x