সব কর্মক্ষেত্রের মতো বলিউডেও বিভেদ আছে: মনীষা

বিনোদন রিপোর্ট ১৩:৪২ , নভেম্বর ০৯ , ২০১৮

মনীষা কৈরালা। কোটি মানুষের স্বপ্নের নায়িকা। দিল সে, আচানক, একেলা হাম একেলা তুম, ১৯৪২: অ্যা লাভ স্টোরি, বোম্বে, খামোশি— এমন ছবিগুলোর মাধ্যমে জয় করেছেন এদেশের ভক্তদের মনও।
সেলুলয়েড পর্দার বাইরে স্বপ্রতিভ তিনি। আনফেপা গুডউইলের শুছেচ্ছাদূত এবং সামাজিক কর্মী হিসেবে বিশেষভাবে সুপরিচিত তিনি। এই তারকা এখন ঢাকায়। এসেছেন ‌বিশ্বের অন্যতম সাহিত্য উৎসব ঢাকা আন্তর্জাতিক লিট ফেস্ট-এর অতিথি হয়ে। আয়োজনে নিজের কাজ নিয়ে কথা বলার পর বাংলা ট্রিবিউনের একান্ত আলাপচারিতায় অংশ নেন। তার সঙ্গে কথা বলেন বাংলা ট্রিবিউনের মার্কেটিং প্রধান অভিনেত্রী বন্যা মির্জা।

মনীষার উদ্দেশে প্রশ্ন ছিল এমন- হ্যাশ ট্যাগ মি টু ভারতে যেমন তোলপাড় করছে, তেমনি বাংলাদেশেও এর আভাস পাওয়া যাচ্ছে। বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা নানা পাটেকার, নির্মাতা সাজিদ খানের বিরুদ্ধেও উঠেছে একই অভিযোগ। যারা ভুক্তভোগী তাদের সঙ্গে কথা না বলে এসব অভিযোগের বিরুদ্ধে তদন্তের বিষয়টিকে কীভাবে দেখেন
মনীষা কৈরালা: নারীর ক্ষমতায়নে আমি বিশ্বাসী। কিন্তু আমি সোশ্যাল মিডিয়া ট্রায়ালে বিশ্বাসী না। দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ তদন্ত করে বিচারের আওতায় নিয়ে আসায় আমি বিশ্বাসী।

বাংলা ট্রিবিউন: অনেক সুপারস্টার আছে। ছেলে সুপারস্টার আবার মেয়ে সুপারস্টার। এখানেও মেয়েদের সামনে আসতে দেওয়া হয় না। এ বিষয়টি নিয়ে আপনি কী ভাবেন?
মনীষা কৈরালা: সব কর্মক্ষেত্রেই এই বিভেদ আছে। বিষয়টিকে আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখি। আর আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। তাই এটা নিয়ে আলাদাভাবে ভাবছি না।

বাংলা ট্রিবিউন: কাজগুলো প্রসঙ্গে কী বলবেন?
মনীষা কৈরালা: আমি আমার প্রতিটি কাজই ভালোবাসি। আমি গল্প দেখতে পছন্দ করি। আর সেভাবেই চলচ্চিত্রগুলো নির্বাচন করি।

বাংলা ট্রিবিউন: মরণঘাতী ক্যানসার জয় করেছেন আপনি। বলা যায় এটা আপনার পুনর্জন্ম।

মনীষা কৈরালা: পুনর্জন্ম শব্দটাকে আমি গুরুত্ব দিতে চাই না। তবে এটা ঠিক, এখানে স্পিরিটি থাকাটা খুব জরুরি।

এদিকে শনিবার (৯ নভেম্বর) ঢাকা লিট ফেস্টের দ্বিতীয় দিনে আব্দুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে দ্য হিলড সেশনে নিজের কর্ম ও জীবন নিয়ে বিস্তর আলাপ করেন বলিউডের সাড়া জাগানো এই অভিনেত্রী। সঙ্গে ছিলেন ভারতের আরেক নন্দিত নির্মাতা-অভিনেত্রী নন্দিতা দাস। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক সাদাফ সায্‌।

ছবি: নাসিরুল ইসলাম

/এম/এমওএফ/

x