জঙ্গিবাদ নিয়ে দারদেন ভাইদের ছবি

বিনোদন রিপোর্ট, কান (ফ্রান্স) থেকে ০২:২৪ , মে ২৩ , ২০১৯



জ্যঁ-পিয়ের দারদেন ও লুক দারদেনইসলামি মৌলবাদ ও জিহাদি বিদ্রোহের মতো স্পর্শকাতর বিষয় তরুণদের বিচ্ছিন্নতার দিকে ঠেলে চরমপন্থী বানিয়ে দেয়। এর সূত্র ধরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গি ও সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা দেখা গেছে। বিষয়টি পীড়া দিয়েছে বেলজিয়ামের জ্যঁ-পিয়ের দারদেন ও লুক দারদেনকে। তাই তারা এবার নির্মাণ করলেন ‘ইয়াং আহমেদ’।
ছবিটির গল্প ১৩ বছরের এক কিশোরকে ঘিরে। তার বাড়ির পাশের মসজিদের ইমাম ইউসুফ তার মগজধোলাই করে নানান কাজে ব্যবহার করতে থাকে। এর পরিপ্রেক্ষিতে নিজের শিক্ষককে ছুরিকাঘাত করে ছেলেটি।
মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১১টায় পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে হাজির হন দারদেন ভাইরা। লুক বলেন, ‘ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র, শ্রীলঙ্কা ও মধ্যপ্রাচ্যে যেসব সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার সূত্র ধরে ছবিটি তৈরি করেছি।’
এক কিশোরের দৃষ্টিকোণ থেকে গল্প বলেছেন দারদেন ভ্রাতৃদ্বয়। বয়সের সন্ধিক্ষণে পড়ে মায়ের সঙ্গে সম্পর্কটা আশঙ্কাজনক হয়ে যায় তার। প্রতিদিনের দৈনন্দিন জীবনাপনের সময় ধর্মাবন্ধতায় জড়িয়ে পড়া ছেলেটিতে পারে কিনা তা জানা যাবে ছবিতে।
জ্যঁ-পিয়েরে বলেন, ‘এটি আদালতের ছবি নয়। এই ছবি কোনও অভিযোগ তোলেনি। শুরু থেকে আমাদের লক্ষ্য ছিল, আহমেদ স্বাভাবিক জীবনে ফিরতো পারলো কিনা তা দেখোনো।’
ইয়াং আহমেদউৎসবের সপ্তম দিন বিকাল ৪টায় গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে ছবিটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়। একই দিন বিকাল সোয়া ৪টায় সাল বাজিনে সাংবাদিকদের জন্য ছিল এর একটি প্রদর্শনী। মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল সাড়ে ৮টায় সাল দ্যু সোসানতিয়েমে, দুপুর ২টায় গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে ও রাত ৮টায় পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের বাইরে অলিম্পিয়া প্রেক্ষাগৃহে আবারও এটি দেখানো হয়েছে।
তিন বছর পর ফিরলেন কানসৈকতে। তাদের নতুন ছবি ‘ইয়াং আহমেদ’ মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত হওয়ায় স্বর্ণ পামের জন্য লড়ছে। ১৯৯৯ সালে ‘রোসেট্টা’ ও ২০০৫ সালে ‘দ্য চাইল্ড’-এর মাধ্যমে পাম দ’র জেতেন দারদেন ভ্রাতৃদ্বয়। এছাড়া ২০০৮ সালে কানে সেরা চিত্রনাট্যকার (লরনা’স সাইলেন্স) ও ২০১১ সালে গ্রাঁ প্রিঁ জেতে তার ‘দ্য কিড উইথ অ্যা বাইক’।
এছাড়া দারদেন ভ্রাতৃদ্বয়ের ‘টু ডেজ, ওয়ান নাইট’ ২০১৪ সালে ও ‘দ্য আননৌন গার্ল’ ২০১৬ সালে প্রতিযোগিতা বিভাগে স্থান পায়।
প্রতিযোগিতা বিভাগের অন্যান্য ছবির মধ্যে উৎসবের সপ্তম দিনে রাত সোয়া ১০টায় গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে, সাল দুবুসিতে রাত সাড়ে ১০টা ও রাত সোয়া ১০টায় সাল বাজিনে প্রদর্শিত হয়েছে মার্কিন নারী নির্মাতা আইরা সাকসের ‘ফ্রাঙ্কি’। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বর্ষীয়ান ফরাসি অভিনেত্রী ইজাবেলা হুপার। এর গল্পে দেখা যায়, বিখ্যাত একজন ফরাসি অভিনেত্রী জানতে পারে সে আর অল্প কয়েকদিন বেঁচে থাকবে। তাই জীবনের শেষ পারিবারিক অবকাশযাপনে পর্তুগালের সিন্ত্রায় সবাইকে জড়ো করেন তিনি।
প্রতিযোগিতা বিভাগে আগে প্রিমিয়ার হওয়া ফরাসি নারী নির্মাতা সেলিন সিয়ামার ‘পোর্ট্রেট অব অ্যা লেডি অন ফায়ার’ গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে সকাল সাড়ে ৮টা, সাল দ্যু সোসানতিয়েমে বিকাল পৌনে ৩টায় ও পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের বাইরে অলিম্পিয়া প্রেক্ষাগৃহে রাত ৮টায় ফের দেখানো হয়।
স্বর্ণ পাম জয়ী মার্কিন নির্মাতা টেরেন্স মালিকের ‘অ্যা হিডেন লাইফ’ গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে সকাল সাড়ে ১১টায় ও সাল দ্যু সোসানতিয়েমে রাত সাড়ে ৯টায় আবারও প্রদর্শিত হয়েছে।
দ্য ইনভিজিবল লাইফ অব ইউরিজিসি গুজমাওআঁ সার্তে রিগার
অফিসিয়াল সিলেকশনের এই বিভাগে সোমবার (২০ মে) সকাল সাড়ে ৮টা ও সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় ছিল ব্রাজিলিয়ান নির্মাতা করিম আইনুজের ‘দ্য ইনভিজিবল লাইফ অব ইউরিজিসি গুজমাও’। এর প্রেক্ষাপট ১৯৫০ সালের ব্রাজিলের রিও ডি জানেইরো। ইউরিজিসি তখন অষ্টাদশী। আর তার বোন গুইদা সবে কুড়ি ছুঁয়েছে। দু’জনের মধ্যে ভালো মিল। তাদের স্বপ্ন জনপ্রিয় পিয়ানোবাদক হওয়া নয়তো সত্যিকারের ভালোবাসা খুঁজে পাওয়া। বাবার চাপে দুই বোনকে আলাদা থাকতে হয়। তবে আবারও একসঙ্গে থাকার আশা ছাড়ে না তারা।
মরক্কোর নারী নির্মাতা মরিয়ম তুজানির ‘আদম’ সোমবার (২০ মে) সকাল সাড়ে ১১টা ও দুপুর ২টায় দেখানো হয়। এর গল্প আবলাকে ঘিরে। ক্যাসাব্ল্যাঙ্কায় নিজের বাসা থেকেই একটি বেকারি চালায় সে। আট বছরের মেয়ে ওয়ার্দাকে নিয়ে দিন কাটে তার। একদিন তার দুয়ারে কড়া নাড়ে অল্পবয়সী সন্তানসম্ভবা নারী সামিয়া। আবলা কল্পনাও করতে পারে না, এরপর তার জীবনটা বদলে যাবে।
তাইওয়ানের মিদি জি পরিচালিত ‘নিনা উ’ প্রদর্শিত হয়েছে বিকাল সাড়ে ৪টায়। এর গল্প একটি মেয়েকে ঘিরে। অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্নপূরণের জন্য ছোট মঞ্চনাটকের দল ছেড়ে বড় শহরে পা রাখে সে। কিন্তু তার অপেক্ষা যেন শেষ হওয়ার নয়। একদিন সত্তর দশকের গোয়েন্দাধর্মী ছবিতে নায়িকার চরিত্র পায় নিনা। কিন্তু বহুল প্রতীক্ষিত খ্যাতি পাওয়ার পর থেকে অপ্রীতিকর ও দুর্ভাগ্য তাকে তাড়া করে ফেরে।
এ তিনটি ছবির প্রদর্শনী হয়েছে সাল দুবুসিতে। একই বিভাগে উৎসবের ষষ্ঠ দিন প্রিমিয়ার হওয়া ফরাসি নির্মাতা ক্রিস্তফ নোরের ‘অন অ্যা ম্যাজিক্যাল নাইট’ সোমবার (২০ মে) দুপুর সোয়া ১টায় সাল বাজিনে আবারও দেখানো হয়। উৎসবের পঞ্চম দিন প্রিমিয়ার হওয়া স্প্যানিশ নির্মাতা আলবের্ত চেরার ‘লিবার্টি’ ফের প্রদর্শিত হয়েছে সাল বাজিনে।
দ্য গুড টাইমসপ্রতিযোগিতা বিভাগে বাইরে
আউট অব কম্পিটিশনে সোমবার (২০ মে) সন্ধ্যা ৭টায় গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে দেখানো হয় ফরাসি নির্মাতা নিকোলা বোদোসের ‘দ্য গুড টাইমস’। এর গল্প ষাটোর্ধ্ব ভিক্টরকে ঘিরে। সফল উদ্যোক্তা আন্তোয়ান নতুন ধরনের অতুলনীয় বিনোদনের প্রস্তাব দেয়। তা হলো প্রযুক্তির সহায়তায় গ্রাহকরা নিজেদের পছন্দমাফিক অতীতের যেকোনও একটি সময়ের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারবে। ভিক্টর সিদ্ধান্ত নেয়, ৪০ বছর আগে প্রেমিকার সঙ্গে প্রথম সাক্ষাতের দিনগুলোতে ফিরে যাবে।
উৎসবের সপ্তম দিন প্রতিযোগিতার বাইরে সাল দ্যু সোসানতিয়েমে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় স্পেশাল স্ক্রিনিংয়ে নির্বাচিত মেক্সিকান অভিনেতা গায়েল গার্সিয়া বার্নাল পরিচালিত দ্বিতীয় ছবি ‘চিকোয়ারোতেস’ দেখানো হয়। এর গল্প দুই কিশোর ক্যাভালেরা ও মলোতেকোকে ঘিরে। নিউ মেক্সিকোর সান গ্রেগোরিও আতলাপুলকোতে থাকে তারা। বাধাধরা নিয়ম থেকে বেরোতে মুখিয়ে থাকে উভয়ে। স্বাধীনতার চাহিদা তাদের ঠেলে দেয় মেক্সিকো সিটির অপরাধ জগতে।
স্পেশাল স্ক্রিনিংয়ে নির্বাচিত আমেরিকান চলচ্চিত্রকার আবেল ফেরেরার ‘টমাসো’ সাল বুনুয়েল প্রদর্শিত হয় রাত পৌন ৮টায়। এর গল্প মার্কিন একজন চিত্রশিল্পীকে ঘিরে। ইতালির রোমে ইউরোপীয় স্ত্রী নিকি ও তিন বছরের মেয়ে ডি ডি’কে নিয়ে থাকে সে।
একই ভেন্যুতে বিকাল সাড়ে ৫টায় আউট অব কম্পিটিশনে আগে প্রদর্শিত বর্ষীয়ান ফরাসি নির্মাতা ক্লদ ল্যঁলুশের ‘দ্য বেস্ট ইয়ারস ইন মাই লাইফ’ আর গ্যাসপার নো পরিচালিত ‘লুক্স এতেরনা’ দুপুর সোয়া ১টায় আবারও দেখানো হয়।
টমাসোকান ক্ল্যাসিকস
ধ্রুপদী ছবির এই আয়োজনে উৎসবের সপ্তম দিন পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের সাল বুনুয়েল থিয়েটারে সকাল ১১টায় ছিল পোল্যান্ডের আনজেই বাইদার ‘দে লাভড লাইফ’ (১৯৫৭)। একই ভেন্যুতে দুপুর ২টায় দেখানো হয় কিংবদন্তি ইতালিয়ান অভিনেত্রী আনা মানানির ওপর এনরিকো সেরাসোলো পরিচালিত ‘দ্য প্যাশন অব আনা মানানি’। এছাড়া বিকাল সাড়ে ৪টায় সাল বুনুয়েলে ছিল ফরাসি পরিচালক ব্রার্ট্রান্ড তেভারনিয়ারের প্রতি সম্মান জানিয়ে ‘অ্যা লাইফ ইন সাউন্ডট্র্যাক’।
সিনেমা ডি লা প্লাজ
সাগরপাড়ে ছবি দেখার আয়োজনে সোমবার (২০ মে) রাত সাড়ে ৯টায় ছিল নারী রকতারকাদের ওপর দুই নির্মাতা ফ্রাঁসোয়া আমানে ও বেয়নের প্রামাণ্যচিত্র ‘হাই গার্লস’। পালে দে ফেস্তিভালের অদূরে ম্যাসি সৈকতে খোলা আকাশের নিচে এটি সবার জন্য উন্মুক্ত ছিল।
অ্যান ইজি গার্লডিরেক্টরস ফোর্টনাইট
ফরাসি চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি আয়োজিত ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট কানের প্যারালাল বিভাগ। এতে রবিবার সকাল পৌনে ৯টা ও রাত সাড়ে ৮টায় ছিল ফরাসি নারী নির্মাতা রেবেকা জোটস্কির ‘অ্যান ইজি গার্ল’। এর গল্প ষোড়শী নাইমাকে ঘিরে। সে কানে থাকে। তার সঙ্গে ছুটি কাটাতে আসে কাজিন সোফিয়া। দু’জনে মিলে স্মরণীয় গ্রীষ্মকাল উপভোগ করে তারা।
সকাল সাড়ে ১১টা ও সন্ধ্যা ৬টায় দেখানো হয় চীনা বংশোদ্ভুত কানাডিয়ান নির্মাতা জনি মা পরিচালিত ‘টু লিভ টু সিং’। চীনের একটি অপেরা দলের টানাপোড়েনকে ঘিরে এর গল্প।
সোমবার (২০ মে) দুপুর আড়াইটায় প্রদর্শিত হয়েছে আন্দ্রেয়াস হরবাট পরিচালিত ‘লিলিয়ান’। এর গল্প নিউ ইয়র্ক সিটির অভিবাসী মেয়েকে ঘিরে। জন্মভূমি রাশিয়ায় ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সে। শুরু হয় রোড মুভি।
স্যুমেন দ্যু লা ক্রিতিক
চলচ্চিত্র সমালোচকদের আয়োজনে কানের এই প্যারালাল বিভাগে হোটেল মিরামারে রবিবার সকাল সোয়া ১১টা, বিকাল সাড়ে ৫টা ও রাত ৯টায় ছিল আলজেরিয়ান বংশোদ্ভুত ফরাসি নির্মাতা আমিন সিদি বুমেদিয়েনের ‘আবু লিলা’। এর প্রেক্ষাপট ১৯৯৪ সালের আলজেরিয়া। বিপজ্জনক সন্ত্রাসী আবু লিলাকে খুঁজতে মরুভূমি ধরে এগোতে থাকে দুই বাল্যবন্ধু এস ও লফতি। কিন্তু কোনোভাবেই তারা সফল হয় না। একসময় তারা নিজেদের সহিংসতার মুখোমুখি হয়।
এ বিভাগে উৎসবের ষষ্ঠ দিন প্রিমিয়ার হওয়া আর্জেন্টাইন নারী নির্মাতা সোফিয়া কিরোস উবেদার ‘ল্যান্ড অব অ্যাশেজ’ সোমবার (২০ মে) সকাল সাড়ে ৮টায় আবারও দেখানো হয়। এছাড়া বিকাল পৌনে ৩টায় ছিল স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের বিশেষ প্রদর্শনী।
এসিড
কান উৎসবের আরেক প্যারালাল বিভাগ এসিডে সোমবার (২০ মে) সকাল সাড়ে ১১টায় স্টুডিও থার্টিনে ও রাত ৮টায় আর্কেডস প্রেক্ষাগৃহে ছিল উৎসবের চতুর্থ দিন দেখানো ‘ব্লাইন্ড স্পট’। আলেকসঁন্দ থ্রি থিয়েটারে দুপুর ২টায় ছিল উৎসবের তৃতীয় দিন প্রদর্শিত ‘মেন’।
* ফ্রান্সের সময়ের সঙ্গে বাংলাদেশের পাঠকদের চার ঘণ্টা যোগ করে নিতে হবে।

 

/জেএইচ/এমএম/

x