সৈয়দ মহিদুল ইসলাম স্মরণে নাটক

বিনোদন রিপোর্ট ০০:০৩ , সেপ্টেম্বর ১৬ , ২০১৯

মঞ্চে হ্যানা ও শাপলানাট্যজন সৈয়দ মহিদুল ইসলাম স্মরণে নাটক প্রদর্শনের আয়োজন করেছে থিয়েটার আর্ট ইউনিট। আজ (১৬ সেপ্টেম্বর) এটি হবে। এতে মঞ্চস্থ হবে সাড়া জাগানো নতুন নাটক ‘সুতায় সুতায় হ্যানা ও শাপলা’।
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে সন্ধ্যায় ৭টায় এটি দেখানো হবে।

আনিকা মাহিনের লেখা ও নির্দেশক রোকেয়া রফিক বেবীর ‘সুতায় সুতায় হ্যানা ও শাপলা’ নাটক শুরু হয় পালা দিয়ে। গায়েন বর্ণনা শুরু করে হ্যানার জীবনগাথা। পাহাড়, হ্রদ আর তুলার মেঘের বর্ণনায় উচ্ছল কিশোরী হ্যানা। কিন্তু হঠাৎ পালার ছন্দপতন ঘটাতে আবির্ভাব হয় শাপলার। সে বলতে শুরু করে তার নিজের গল্প।

হ্যানার গল্পটা তার দেশের গল্প। মায়ের গল্প, সুচিকর্মের গল্প, প্রেমের গল্প, শিল্পের জন্য ত্যাগের গল্প। একপর্যায়ে হ্যানার প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ের কথা পাকাপাকি, বিয়ে নিয়ে সব তোড়জোড়। কিন্তু যখন শুনতে পায় প্রেমিকের মুখে, বিয়ের পর ছেড়ে দিতে হবে তার শিল্পকর্ম, তখন এক কঠিন সিদ্ধান্তের সম্মুখীন হয় হ্যানা। সে সিদ্ধান্ত নেয়, গতানুগতিক জীবন তার জন্য নয়, তার বেঁচে থাকা মায়ের দিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য নিয়ে, সুচিকর্ম নিয়ে।

পৃথিবীর দুই প্রান্তের দেশ বাংলাদেশ ও সুইডেনের একজন করে নারীর উপাখ্যান নিয়ে সাজানো হয়েছে ‘সুতায় সুতায় হ্যানা ও শাপলা’। হ্যানা বিংশ শতাব্দীর দ্বারপ্রান্তে জন্ম নেওয়া সুইডেনের এক সুচশিল্পী। আর শাপলা বাংলাদেশের তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিক। নাটকটি মূলত এই দুই মৃত নারীর পরস্পরের গল্পকথন।
নাটকটি লিখেছেন নির্দেশক রোকেয়া রফিক বেবীর মেয়ে আনিকা মাহিন একা। হ্যানা চরিত্রে সঙ্গীতা চৌধুরী ও শাপলার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মিতালী দাস। সূত্রধর হিসেবে আছেন সুজন রেজাউল। এতে মূল গায়েন চরিত্রে অভিনয় করা সেলিম মাহবুব নিজেই নাটকটির সংগীত পরিকল্পনা করেছেন। আলোক পরিকল্পনায় আছেন নাসিরুল হক।

/এম/এমওএফ/

x