পাকিস্তানের সিনেটে বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন শেরি রেহমান

বিদেশ ডেস্ক ১৭:১২ , মার্চ ১৪ , ২০১৮

পাকিস্তানের সিনেটে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে শেরি রেহমানকে মনোনীত করেছে দেশটির প্রধান বিরোধী দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)। বুধবার দলটির চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি তাকে এ পদের জন্য মনোনীত করেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডন।

শেরি রেহমানএ মাসের গোড়ার দিকে পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেট নির্বাচনে জাতীয় ও প্রাদেশিক পরিষদের ১০৪টি আসনের মধ্যে ৫২ আসনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে পাকিস্তান মুসলিম লীগ (নওয়াজ)  পেয়েছে ১৫টি আসন, পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) পেয়েছে ১২টি আসন। ক্রিকেটার ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ পেয়েছে ছয়টি আসন। জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম-এফ পেয়েছে দুইটি আসন। মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পেয়েছে দুইটি আসন। ১০টি আসনে জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আবারও পাকিস্তানের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল হিসেবে নিজের অবস্থান সংহত করে মুসলিম লীগ। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পিপিপি। আর তৃতীয় স্থানে রয়েছে তেহরিক-ই-ইনসাফ। বিরোধী দল হিসেবে বুধবার সিনেটে নিজেদের নেতা নির্বাচিত করে পিপিপি।

বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের অধিকারী শেরি রেহমান ২০০৮ সালে পিপিপি সরকারের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। অবশ্য সে সময় এক বছরের মাথায় তিনি মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেন।

২০১১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত পাকিস্তানের তৎকালীন রাষ্ট্রদূত হোসাইন হাক্কানি পদত্যাগ করলে তার স্থলাভিষিক্ত হন শেরি রেহমান। কঠিন সময়ে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের স্বীকৃতি হিসেবে পাকিস্তান সরকার তাকে দেশটির সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা নিশান-ই-ইমতিয়াজ পদকে ভূষিত করে।

শেরি রেহমানের জন্ম ১৯৬০ সালের ২১ ডিসেম্বর করাচিতে। তিনি যুক্তরাজ্যের খ্যাতনামা ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্স থেকে পড়াশুনা করেছেন।

পাকিস্তানের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষকে সিনেট নামে ডাকা হয়। এতে মোট ১০৪ জন আইনপ্রণেতা থাকেন। প্রত্যেকেই পদত্যাগ, অযোগ্য ঘোষষিত বা বিশেষ পরিস্থিতি সৃষ্টি না হলে  ছয় বছর মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেন। তবে এসব সিনেট সদস্যরা সবাই একবারে নির্বাচিত হন না। অর্ধেক নির্বাচিত হন এক সময়ে। বাকি অর্ধেক তিন বছর পরে নির্বাচিত হন।

/এমপি/

x