শিয়াদের গুরুত্বপূর্ণ শহর নাজাফে প্রথমবার নির্বাচিত হলেন কমিউনিস্ট নারী

বিদেশ ডেস্ক ২১:০০ , মে ১৬ , ২০১৮

আইএস বিরোধি যুদ্ধে জয়ী হওয়ার পর ইরাকের সদ্য সমাপ্ত সংসদ নির্বাচনে কমিউনিস্ট পার্টি থেকে নাজাফে জয়ী হয়েছেন এক নারী। শিয়া ধর্ম তাত্ত্বিকদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ এই শহরে প্রথমবারের মতো বিজয়ী হয়েছেন সুহাদ আল খাতিব। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বিষয়ক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট আই জানিয়েছে, ফাতাহ জোটের প্রার্থীকে হারাতে খাতিবের ইরাকি কমিউনিস্ট পার্টি দল জোট বেঁধেছে শিয়াপন্থিদের দল সদরিস্ট মুভমেন্টের সঙ্গে।নির্বাচনি প্রচারণায় সুহাদ আল খাতিব

ইসলামিক স্টেট (আইএস) জিহাদিদের সঙ্গে লড়াইয়ে বিজয়ের পর ইরাকের দেশব্যাপী সাধারণ নির্বাচনে শনিবার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে ভোট দেয় ৪৪.৫ শতাংশ ভোটার। তবে ভোট দেওয়া বেশিরভাগ ভোটার বেছে নিয়েছে শিয়া নেতা মুক্তাদা আল সদরের সাইরুন জোটকে। এই জোটে রয়েছে ইরাকি কমিউনিস্ট পার্টি (আইসিপি) ও অপেক্ষাকৃত ছোট দল ইরাকি রিপাবলিকান পার্টি। সাইরুন জোটের হয়ে নাজাফ থেকে ৯২ হাজার ২৬ ভোট পেয়েছেন খাতিব। আর তেহরান সমর্থিত মিলিশিয়া সদস্যের নিয়ে গঠিত দল ফাতাহ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছে।

এই জোটের হয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়ে আইসিপি নেতা সুহাদ আল খাতিব। নারী অধিকার ও দারিদ্র বিরোধী কর্মী খাতিব একজন শিক্ষক। আগের কোনও সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার অভিজ্ঞতা নেই তার।

মিডলইস্ট আইকে খাতিব বলেছেন, আমি ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ না নিলেও নাজাফে মানুষের কাছে ভোট চাইতে যাওয়া দলের অংশ ছিলাম। আমরা নাজাফের ঘিঞ্চি বস্তিতে তাদের কাছে গিয়ে সমস্যার কথা শুনে তাদের সাহায্য করেছি। নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কথা আমি ভাবিনি।

তবে নিজের ছাত্র আর সহকর্মীদের কাছ থেকে সমর্থন পেয়ে তিনি এবার সাইরুন জোটের টিকেটে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে আগ্রহী হয়ে ওঠেন তিনি।

 

/জেজে/

x