যুক্তরাজ্যের নতুন ভিসা ব্যবস্থায় সুবিধা পাবে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরাও

অদিতি খান্না, যুক্তরাজ্য ২১:৪৮ , সেপ্টেম্বর ১১ , ২০১৯

বিদেশি শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা শেষে বাড়তি দুই বছর কাজের সুযোগ দিতে নতুন ভিসা ব্যবস্থার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাজ্য সরকার। বুধবার ঘোষিত এই ব্যবস্থা ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চাওয়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের কাছেও চরম আকর্ষণীয় হবে বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী বছর থেকে কার্যকর হবে নতুন এই ভিসা ব্যবস্থা।

যেসব বিদেশি শিক্ষার্থী যুক্তরাজ্যের সরকার অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্ডারগ্রাজুয়েট বা তার চেয়ে উপরের কোর্সের পড়াশোনা শেষ করবে তারা নতুন এই ভিসা ব্যবস্থার সুবিধা পাবে। এর আওতায় শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা শেষে নিজেদের পছন্দ মতো কাজ করতে, কাজের সুযোগ খুঁজতে পারবে।

প্রায় নয় বছর আগে বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য এই সুযোগ স্থগিত করে দেন তৎকালীন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেরেসা মে। আর ব্রেক্সিট নিয়ে টালমাটাল পরিস্থিতিতে দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সরকার ভিসা ব্যবস্থার সেই নিয়মে বদল আনলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এরমাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের সম্ভাবনা উন্মোচনের সুযোগ পাবে আর যুক্তরাজ্যে ক্যারিয়ার শুরু করতে পারবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল বলেন, নতুন এই ভিসা ব্যবস্থায় বিদেশি মেধাবী শিক্ষার্থীরা, তারা বিজ্ঞান, গণিত বা প্রযুক্তি ও প্রকৌশল যে বিষয়ের হোক না কেন যুক্তরাজ্যে পড়তে পারবে আর তারপর মূল্যবান কর্ম অভিজ্ঞতা লাভ করে ভবিষ্যতে সফল ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবে। তিনি বলেন, এতে আমাদের বৈশ্বিক দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত হবে আর সবচেয়ে মেধাবী ও সম্ভাবনায় শিক্ষার্থীদের আমরা আকৃষ্ট করা নিশ্চিত করতে পারবো।

২০১২ সালে থেরেসা মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকার সময়ে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা শেষে দুই বছরের কাজের সুযোগ বাতিল করে যুক্তরাজ্য। অনেকেই মনে করেন এই সিদ্ধান্তের কারণে বাংলাদেশ ছাড়াও দক্ষিণ এশিয়া থেকে ব্রিটেনে পড়তে যাওয়া শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ব্যাপকভাবে কমে গিয়েছিল। গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশ থেকে ব্রিটেনে পড়তে যাওয়া শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কমতে থাকার পর সম্প্রতি এই সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলোর আবেদন সেবা (ইউসিএএস) তদারকি প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুযায়ী ৩০ জুন পর্যন্ত এই বছর যুক্তরাজ্যে কোর্স নেওয়ার আবেদন করেছে ৩১০ জন শিক্ষার্থী। এর আগের বছর এই সংখ্যা ছিল ২৭০ জন।

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী কমে যাওয়া অনেক কারণের মধ্যে অন্যতম ছিল পড়াশোনা শেষে কাজের সুযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়া। সেকারণে যুক্তরাজ্য সরকারের নতুন ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় প্রধান এবং তাদের প্রতিনিধিরা।

যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রধান নির্বাহী অ্যালিস্টাইর জার্ভিস বলেন, ‘প্রমাণ রয়েছে যে বিদেশি শিক্ষার্থীরা ব্রিটেনের অর্থনীতিতে ২৬০০ কোটি ইউরো যোগান দেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন ইতিবাচক পরিবর্তন এনেছে। তবে দীর্ঘ সময় ধরে পড়াশোনা শেষে কাজের সুযোগ বন্ধ রাখা ওইসব শিক্ষার্থী আকর্ষণে প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্যকে অসুবিধায় ফেলে দিয়েছিল।

নতুন ভিসা ব্যবস্থা ২০২০-২১ সালে ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হওয়া শিক্ষার্থীদের জন্য প্রযোজ্য হবে।

 

/জেজে/

x