সৌদি বাদশা ও যুবরাজের সঙ্গে কাশ্মির নিয়ে বৈঠক ইমরান খানের

বিদেশ ডেস্ক ১৩:২০ , সেপ্টেম্বর ২০ , ২০১৯

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বৃহস্পতিবার জেদ্দায় দুই দিনের সফরে গিয়ে  সৌদি বাদশা ও যুবরাজের সঙ্ বৈঠক করেন ইমরান। এসময় সৌদি তেল স্থাপনায় ড্রোন হামলারও নিন্দা জানান তিনি।

২০১৯ সালের ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এই পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে কাশ্মিরজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুলসংখ্যক অতিরিক্ত সেনা। জারি করা হয়েছিল বিধিনিষেধ। গ্রেফতার করা হয়েছে সেখানকার শত শত নেতাকর্মীকে। এরপর থেকেই কূটনৈতিক তৎপড়তা চালিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান।

আগামী সপ্তাহেই নিউ ইয়র্কে বসছে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন। তার আগেই সৌদি বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে কাশ্মিরের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ করেছেন ইমরান খান।  সৌদি নেতাদের সাথে শলাপরামর্শ শেষে ইমরান খান নিউ ইয়র্কের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন। সেখানে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম বার্ষিক অধিবেশনে যোগ দেবেন তিনি।

পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী দফতরে থেকে দেওয়া এক বিৃবতিতে বলা হয়, কাশ্মির নিয়ে ভারতের পদক্ষেপে পাকিস্তান ক্ষুব্ধ। সৌদি বাদশা এসময় কাশ্মিরিদের সঙ্গে তাদের একাত্মতা ও সমর্থনের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন।

ইমরান খান কাশ্মির পরিস্থিতির পাশাপাশি পাকিস্তান ও সৌদি আরবের দ্বিপক্ষীয় স্বার্থ নিয়েও আলোচনা করেন। একইসঙ্গে তিনি সৌদি আরবের আরামকো তেল স্থাপনায় সাম্প্রতিক হামলার নিন্দা জানান। ওই হামলার পর সৌদি আরবের প্রতিদিন তেলের উৎপাদন অর্ধেক কমে গেছে।

দিল্লির ওই পদক্ষেপের পর এর প্রতিবাদে জাতিসংঘে বৈঠকের আবেদন করেছিল পাকিস্তান। কিন্তু এতে কাজ না হওয়ায় দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি চিঠি দেন নিরাপত্তা পরিষদে। পরে চীন নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের জন্য আহ্বান জানালে তা অনুষ্ঠিত হয়। তবে সেখানে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি অস্বীকৃতি জানায় পরিষদের সদস্য রাষ্ট্রগুলো। পরে তারা জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ জানায়।

/এমএইচ/

x