নিজ রিসোর্টে জি-৭ সম্মেলন আয়োজন থেকে পিছু হটলেন ট্রাম্প

বিদেশ ডেস্ক ১১:৫৭ , অক্টোবর ২০ , ২০১৯

ফ্লোরিডার নিজ গল্প রিসোর্টে জি-৭ সম্মেলন আয়োজন থেকে পিছু হটলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর আগে বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, ২০২০ সালে শিল্পোন্নত দেশগুলোর সংস্থা গ্রুপ অব সেভেন (জি-৭) এর শীর্ষ সম্মেলনের ভেন্যু হবে প্রেসিডেন্টের ফ্লোরিডার গলফ রিসোর্ট। ওই বিবৃতির পরই ট্রাম্পের বিরুদ্ধে হোয়াইট হাউসকে ব্যক্তিগত স্বার্থে ব্যবহারের জোরালো অভিযোগ উঠে। সমালোচনার মুখে শনিবার ওই পরিকল্পনা ত্যাগের কথা জানান ট্রাম্প। অর্থাৎ, ২০২০ সালের জি-৭ সম্মেলন ট্রাম্পের ফ্লোরিডার গলফ রিসোর্টে অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।
বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের ভারপ্রাপ্ত চিফ অব স্টাফ মিক মালভেনি ঘোষণা করেন, ২০২০ সালের ১০ থেকে ১২ জুন ‘ট্রাম্প ন্যাশনাল ডোরাল’-এ জি-৭ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ওই ঘোষণার পর থেকেই বিরোধী দল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি বলে আসছে, প্রেসিডেন্টের দফতরকে ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হওয়ার কাজে ব্যবহার করছেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসের ঘোষণা তারই প্রমাণ। এমন সমালোচনার মুখেই ওই পরিকল্পনা থেকে পিছু হটলেন ট্রাম্প। শনিবার টুইটারে দেওয়া পোস্টে তিনি বলেন, হোয়াইট হাউসের এ সংক্রান্ত পরিকল্পনা তিনি বাতিল করে দেবেন।

সংবাদমাধ্যম ও ডেমোক্র্যাটদের ‘পাগলামি ও অযৌক্তিক বৈরিতা’র কারণেই পূর্বনির্ধারিত পরিকল্পনা বাতিল করতে হয়েছে বলে জানান ট্রাম্প। তিনি বলেন, আমরা শিগগিরই অন্য ভেন্যু খুঁজে বের করার কাজ শুরু করবো। এ তালিকায় ক্যাম্প ডেভিডও থাকবে।

এদিকে ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিতব্য জি-সেভেন সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে কোনও আলোচনা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে হোয়াইট হাউস। হোয়াইট হাউসের ভারপ্রাপ্ত চিফ অব স্টাফ মিক মালভেনি বলেন, জলবায়ু পরবির্তন নিয়ে কোনও কথা হবে না।

জি৭ (গ্রুপ অব সেভেন) হচ্ছে জাপান, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে গঠিত একটি সংস্থা। ইউরোপীয় ইউনিয়নও এ সংস্থার প্রতিনিধিত্ব করে। এই সংস্থার সাতটি দেশ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল স্বীকৃত বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় সাত উন্নত অর্থনীতির দেশ।

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের অনাগ্রহ নতুন কিছু নয়। এর আগে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকেও যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়েছেন ট্রাম্প। যদিও পৃথিবীর মোট কার্বন নিঃসরণের অর্ধেকের জন্য দায়ী যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। তবে ট্রাম্প এ কথা স্বীকার করতে চান না। তার মতে, জলবায়ু পরিবর্তন একটি ভ্রান্ত ধারণা।

/এমপি/

x