পানিপথে রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্ট (ভিডিও)

জার্নি রিপোর্ট ২০:৩৮ , আগস্ট ২০ , ২০১৯



রাতারগুল ক্যাম্পিং সাইট থেকে নৌকা কিংবা কায়াকিং করে যাওয়া যায় জলাবনে। সিলেটের স্থানীয় ভাষায় পাটি গাছ ‘রাতা গাছ’ নামে পরিচিত। এর নামানুসারে বনটির নাম রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্ট। সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের একমাত্র এই জলাবনের আয়তন প্রায় ৩ হাজার ৩২৫ একর। এখানে সবচেয়ে বেশি জন্মায় করচ গাছ। বর্ষাকালে এই বন ২০-৩০ ফুট পানির নিচে নিমজ্জিত থাকে।

পৃথিবীর অন্যতম এই জলাবন বন বিভাগের অধীনে সংরক্ষণ করা হয়েছে। এটি মূলত প্রাকৃতিক বন হলেও পরবর্তী সময়ে বন বিভাগ বেত, কদম, হিজল, পাটিসহ নানান জাতের জলসহিষ্ণু গাছ লাগিয়েছে।

রাতারগুল জলাবন বন্যপ্রাণীর অভয়ারণ্য হিসেবেও পরিচিত। এই বনে অথৈ জল থাকে চার মাস, তারপর ছোট ছোট খালগুলো হয়ে যায় পায়ে চলার পথ। এছাড়া এই বনের ৮০ শতাংশ এলাকাই গাছ দিয়ে ভরা। বিশাল এ বনে রয়েছে জলসহিষ্ণু প্রায় ২৫ প্রজাতির গাছ। অপরূপ এই জলাবনের সৌন্দর্য দেখতে বর্ষা মৌসুমে ভিড় করেন পর্যটকরা।

ভিডিও: সাদ্দিফ অভি

/এসও/জেএইচ/

x