বাংলা ট্রিবিউন ফেসবুক লাইভ ‘শাড়ি পরার অভ্যাস কমে যাচ্ছে আমাদের’

লাইফস্টাইল ডেস্ক ১৭:৪৪ , ফেব্রুয়ারি ১৪ , ২০১৮

বাংলা ট্রিবিউন আয়োজিত ফেসবুক লাইভে এসেছিলেন ফ্যাশন হাউস বিশ্বরঙ-এর কর্ণধার ও ডিজাইনার বিপ্লব সাহা। ১৪ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) বাংলা ট্রিবিউনের কার্যালয়ে আয়োজিত এই লাইফস্টাইল শোতে তিনি উৎসবের ফ্যাশন নিয়ে কথা বলেন। এছাড়াও ফ্যাশন সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় উঠে এসেছে আলোচনায়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন বাংলা ট্রিবিউনের হেড অবসেলস অ্যান্ড মার্কেটিং ও অভিনেত্রী বন্যা মির্জা।

বিপ্লব সাহা ও বন্যা মির্জা
ফেব্রুয়ারি মাস উৎসবের মাস। ছোট এই মাসে অনেকগুলো বড় বড় উৎসব। উৎসবপ্রিয় বাঙালি জাতি প্রতিটি উৎসবই পালন করে মহাসমারোহে। ‘একদিনের উৎসবকে ঘিরে আমাদের প্রস্তুতি থাকে পুরো বছরের। অবশ্য বসন্তের জন্য আলাদা করে প্রস্তুতি নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। সারাবছরই চলতে থাকে রঙের খেলা’- বলেন বিপ্লব সাহা।  
আজকাল সবাই একটু ভিন্ন কিছু পছন্দ করছেন বলে মনে করেন এই ডিজাইনার। যেমন ফাল্গুনে হলুদ শাড়ি হলুদ ব্লাউজ না পরে অনেকেই এবার একদম সাদা শাড়ি পরেছেন। সাদা শাড়ির সঙ্গে রঙিন ব্লাউজ আর গয়না পরেছেন রঙের ছোঁয়ায় নিজেকে রাঙাতে। ব্যতিক্রমী এই সাজ বেশ নজর কেড়েছে। প্রতিটি ঋতুরই আলাদা রং আছে। উৎসব উদযাপন করার সময় রংগুলোকে কীভাবে ধারণ করা যায় পোশাকে সেটা নিয়ে সবসময়ই চিন্তা করেন ফ্যাশন ডিজাইনাররা।
এক প্রশ্নের জবাবে বিপ্লব সাহা বলেন, ‘শাড়ি পরার অভ্যাস কমে যাচ্ছে আমাদের। কেবল তরুণীরা নয়, বয়স্করাও আজকাল কম শাড়ি পরছেন। শাশুড়ি, ছেলের বউ, নাতনি একসঙ্গে সালোয়ার কামিজ পরে শপিং করতে যান এখন। এটা তাঁতশিল্পের জন্য হুমকিস্বরূপ।’
আরেকটি চিন্তার বিষয় হচ্ছে বিদেশি পণ্যপ্রীতি। অনেকে মনে করেন বিদেশি জিনিস মানেই ভালো। হকার্সসহ বিভিন্ন মার্কেটে টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জের শাড়ি বিক্রি হয় ভারতীয় শাড়ি বলে। কারণ ভারতীয় পণ্য বললে দামটা বেশি দিয়ে হলেও কেনেন মানুষ। এটা খুবই হতাশাজনক। বিপ্লব সাহা মনে করেন আমাদের দেশে অনেক ভালো ভালো পণ্য রয়েছে। বিশেষ করে আমাদের দেশের তাঁতের কদর পুরো বিশ্বজুড়েই। সেখানে আমরা নিজেরাই অবজ্ঞা করছি নিজেদের পণ্য। এর চাইতে হতাশার আর কিছু হতেই পারে না। দেশীয় পণ্য ব্যবহার করার প্র্যাকটিসটা পরিবার থেকেই হওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।  

/এনএ/

x