পেন্সিলের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে প্রদর্শনী

হাসনাত নাঈম ২২:০৬ , অক্টোবর ০৯ , ২০১৮

দুই বছর শেষ করে তিন বছরে পা রাখলো ফেসবুক ভিত্তিক গ্রুপ ‘পেন্সিল’। এ উপলক্ষে বর্ষপূর্তি উৎসবের আয়োজন করেছে গ্রুপটি। রাজধানীর শিল্পকলা অ্যাকাডেমির জাতীয় চিত্রশালার ৫ নম্বর গ্যালারিতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বর্ষপূর্তি উৎসবের উদ্বোধন করেন আলোকচত্রিশিল্পী এবং আলোকচিত্র বিষয়ক শিক্ষক ও লেখক রফিকুল ইসলাম।

উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধান অতিথি বলেন, ফটোগ্রাফারদের একটি দুর্নাম আছে। দুর্নামটি হলো, ক্যামেরায় চাপ দিলেই ছবি উঠে। আসলে এটি সঠিক না। একটি ভালো ছবির জন্য দিনের পর দিন অপেক্ষা করতে হয়। ছবি একটি তাৎক্ষণিক বিষয়। মানুষের দেখার উপযোগী করে ছবি তোলার জন্য খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যেই ফটোগ্রাফারকে সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এজন্য ফটোগ্রাফারকে পর্যাপ্ত জ্ঞান রাখতে হবে।

পেন্সিলের জন্য পরামর্শ হচ্ছে, নতুন যারা ছবি তুলতে আগ্রাহী তাদের ছবি নিয়ে সমালচনামূলক অনুষ্ঠান করার। এটি নেতিবাচক কিছু নয়। এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে একটি ছবির কি কি দোষ আছে, তা খুঁজে বের করা। কারণ, এই দোষ খুজে পেলেই সেই ফটোগ্রাফার আরও ভালো ছবি তুলতে পারবে। পেন্সিল আরও এগিয়ে যাক, সেই কামনাই করছি।

শিল্প সাহিত্যের প্রসার, নবীন সাহিত্যিক, আলোকচিত্রী, চিত্রশিল্পী এবং সঙ্গীতশিল্পীদের জন্য একটি শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম তৈরি করার উদ্দেশ্যে ২০১৬ সালের ১২ সেপ্টেম্বর যাত্রা শুরু করা ফেসবুকভিত্তিক গ্রুপ ‘পেন্সিল’। বর্তমানে যা এখন এক লক্ষ্য সদস্যের এক বিশাল পরিবার। আর এ উপলক্ষেই ৯-১৩ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে প্রদর্শনী।

পাঁচ দিনের এই আয়োজনে থাকছে আলোকচিত্র ও চিত্র প্রদর্শনী। এছাড়াও থাকছে শিশুদের জন্য আর্ট ক্যাম্প এবং পেন্সিল সদস্যদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। একই সঙ্গে এ আয়োজনে নবগঠিত পেন্সিল প্রকাশনির ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছে নতুন ৮টি বই।

পেন্সিল ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক আসকার ইবনে ফিরোজ জানান, অল্প কয়েকজন মিলে ২০১৬ সালে আমরা এই পেন্সিল গ্রুপটি তৈরি করি। শুরু থেকেই এর উদ্দেশ্য ছিলো ফটোগ্রাফার, নতুন লেখক, নতুন ভয়েস আর্টিস্টদের জন্য একটি প্লাটফর্ম তৈরি করার। আমরা সেটি চেষ্টা করছি। আমরা চাই এটি বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষি মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে। সেই লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছে পেন্সিল।

পেন্সিলের এই আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার বাংলা ট্রিবিউন। এছাড়াও মিডিয়া পার্টনার হিসেবে রয়েছে কালের কণ্ঠ, একুশে টেলিভিশন এবং এবিসি রেডিও।

 

/এফএএন/

x