নারীদের আয়করের সীমা ৪ লাখ টাকা নির্ধারণের দাবি উইমেন চেম্বারের

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ২০:১৯ , জুন ০১ , ২০১৭

বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার

জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত যে বাজেট উপস্থাপন করেছেন তার ওপর প্রতিক্রিয়া দিয়েছে বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি। সংগঠনটির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত বাজেটে নারী উদ্যোক্তা উন্নয়নের জন্য চলমান কার্যক্রম অব্যাহত থাকার কথা বলা হলেও সুনির্দিষ্টভাবে বিগত বছরগুলোর মতো ১০০ কোটি টাকা থোক বরাদ্দের কথা বলা হয়নি যা সুনির্দিষ্ট হওয়া প্রয়োজন। এছাড়া নারীদের জন্য ব্যক্তিগত আয়কর সীমা ৪ লাখ টাকা নির্ধারণ করা জরুরি।

বাংলাদেশ উইমেন চেম্বারের অ্যাডভোকেসি কো-অর্ডিনেটর ফারহানা আক্তারের পাঠানো বিবৃতিতে কিছু বিষয় পুনর্বিবেচনার জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে:  ট্রেড লাইসেন্সধারী নারী উদ্যোক্তা যারা নিয়মিত কর পরিশোধ করেন তাদেরকে স্বাস্থ্য ও দুর্ঘটনা বীমার আওতায় আনা, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিভাগীয় পর্যায়ে পৃথক ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ব্যাংক ঋণের ক্ষেত্রে ৭ থেকে ৮ ভাগের মধ্যে সুদের হার নির্ধারণ করা, প্রশিক্ষণ/মেলা/সেমিনার/ওয়ার্কশপ সম্পর্কিত খরচের ওপর ভ্যাট এবং ট্যাক্স থেকে নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন  প্রতিষ্ঠানকে রেয়াত দেওয়া । এছাড়াও বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য  অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কোটা রাখার দাবি জানানো হয় ওই বিবৃতিতে।

আমরা বিশ্বাস করি যে, উপরোক্ত প্রস্তাবনাসমূহ সংশোধীত বাজেটে অন্তর্ভুক্ত হলে নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি পাবে ও দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে নারী উদ্যোক্তারা আরও বেশি গতিশীল ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

/জিএম/

Advertisement

Advertisement

Pran-RFL ad on bangla Tribune x