বনানী-এয়ারপোর্ট মহাসড়কে বনসাই লাগানো বন্ধের নির্দেশ ওবায়দুল কাদেরের

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৮:২৮ , জুন ০৫ , ২০১৭

 

ওবায়দুল কাদেরবনানী-টঙ্গী-জয়দেবপুর মহাসড়কের বনানী রেল ক্রসিং থেকে এয়ারপোর্ট মোড় পর্যন্ত সড়কে নতুন করে বনসাই লাগানো বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বনানী-টঙ্গী-জয়দেবপুর মহাসড়কের বনানী রেল ক্রসিং থেকে এয়ারপোর্ট মোড় পর্যন্ত মহাসড়কের এই অংশটি এয়ারপোর্ট সড়ক নামে পরিচিতি। নির্মাণকাল থেকেই এয়ারপোর্ট সড়কের সব ধরনের উন্নয়ন, মেরামত, রক্ষণাবেক্ষণ ও সৌন্দর্যবর্ধন করে আসছে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদফতর। গুরুত্বপূর্ণ এই মহাসড়ক অংশ মানসম্মতভাবে রক্ষণাবেক্ষণ ও প্রয়োজনীয় মেরামত করে যান চলাচলের সম্পূর্ণ উপযোগী রাখতে সওজ অধিদফতরের দক্ষ জনবল, যন্ত্রপাতি ও সক্ষমতা রয়েছে। 

সম্প্রতি বিভিন্ন আলোচনায় এ মহাসড়কটি সওজ অধিদফতরের আওতাধীন নয় বলে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে, যা আদৌ সত্য নয়। সওজ অধিদফতরের মালিকানাধীন এ মহাসড়কের  সৌন্দর্যবর্ধনসহ যেকোনও উন্নয়নকাজ বাস্তবায়ন সওজ অধিদফতরের অধীন।

সম্প্রতি আউটসোর্সিং-এর মাধ্যমে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর বিমানবন্দর সড়কে সৌন্দর্যবর্ধনের উদ্যোগ নেয়। সৌন্দর্যবর্ধন কর্মসূচির আওতায় বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ গাছের চারা লাগানো হবে। সড়কের পাশে বনসাই লাগানো নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হলে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী নতুন করে বনসাই লাগানো বন্ধের নির্দেশ দেন। দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির ফুল ও শোভাবর্ধক গাছ লাগানোর মধ্যদিয়ে এ সড়কের দু’পাশ সবুজায়ন করা হবে। এছাড়া শোভাবর্ধনকাজে অংশীজনদের সু-বিবেচনাপ্রসূত অভিমত নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, এয়ারপোর্ট সড়কের সৌন্দর্যবর্ধন কাজে সরকারের কোনও আর্থিক সংশ্লেষ নেই। পাশাপাশি সওজ অধিদফতর পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় গাছ লাগানোর মধ্য দিয়ে ঢাকা মহানগরীর চারপাশের প্রবেশপথগুলোর সৌন্দর্যবর্ধনেরও উদ্যোগ নিয়েছে।

/সিএ/ এমএনএইচ/

x