Vision  ad on bangla Tribune

পানি পার ২০ টাকা

নাসিরুল ইসলাম ১৫:০৪ , জুন ১৯ , ২০১৭

২০ টাকা দিয়ে ভ্যানে করে পার হচ্ছেন অফিসগামীরা

রবিবার রাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে রাজধানীর প্রধান প্রধান সড়ক ও অলিগলিতে কোমর থেকে হাঁটু সমান পানি জমে যায়। রাতের বৃষ্টিতে তেমন সমস্যা না হলেও সকাল থেকে শুরু হওয়া টানা বর্ষণে পানি জমে গেছে। রাস্তায় পানি জমে থাকায় যানবাহন চলছে ধীর গতিতে। ফলে রাস্তায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। অফিসগামী যাত্রীরা পড়েছেন বিপাকে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়িতে বসে থেকে একসময় বিরক্ত হয়ে হাঁটা শুরু করেন তারা। কিন্তু পানির কারণে সেটাও পারছিলেন না। পাশেই ভ্যান চালকরা বলছেন, ‘পানি পার ২০ টাকা, পানি পার ২০ টাকা’। বাধ্য হয়ে লোকজন ২০ থেকে ৪০ টাকা দিয়ে ভ্যান ও রিকশায় পানি পার হয়েছেন। এতে নিম্ন আয়ের লোকজন পড়েছেন বিপাকে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, রোকেয়া সরণির মিরপুর ১০ নম্বর থেকে কাজীপাড়া পর্যন্ত প্রধান সড়কে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। ১০০-১৫০ হাত পর্যন্ত রাস্তায় কোমর সমান পানি জমে গেছে। এটুকু পথ পার করে দিকে ভ্যানচালকরা ২০ টাকা নিচ্ছেন। একসঙ্গে চার-পাঁচজনকে নিয়ে পানি পার করে দিচ্ছেন। এই রাস্তা পার করে দিতে রিকশাচালকরা চাইছেন ৪০ টাকা।

এত ভাড়া কেন চাইছেন- এ প্রশ্নের জবাবে এক ভ্যান চালক বলেন, ‘ভাই সামনে ঈদ। আমাদেরও তো ঈদ করা লাগবে। এজন্য টাকা একটু বেশি নিচ্ছি। সবাই তো বেতন-বোনাস পায়, আমরা তো আর তা পাই না। বৃষ্টি হয়ে আমাদের বাড়তি কিছু টাকা আয়ের সুযোগ হয়েছে।’

ভ্যানে করে পার হওয়া এক যাত্রী বলেন, ‘আমরা তো নিরুপায়। কিছুই করার নেই। অফিসে তো যেতে হবে। তালতলা থেকে কাজীপাড়া রাস্তায় গাড়ি আটকে আছে। হেঁটে যাবো বলে বাস থেকে নেমেছি। কিন্তু রাস্তায় নেমে দেখি পানি। বাধ্য হয়েই এভাবে পার হচ্ছি। গাড়ি ভাড়াও ফেরত দেয়নি আবার রিকশা-ভ্যানে বেশি ভাড়া নিচ্ছেন।’

রাস্তার পানির ছবি তোলার সময় এই প্রতিবেদককে কয়েকজন তরুণী বলেন, ‘ভাই ছবি না তুলে কয়েকটা নৌকা পাঠান। তাহলে আমরা কম ভাড়ায় যেতে পারবো।’

/টিআর/এসটি/

আরও পড়ুন:

আষাঢ়ের শুরুতেই পানির নিচে ঢাকা

রাজপথ নাকি নৌপথ!

 

 

 

 

Advertisement

Advertisement

Pran-RFL ad on bangla Tribune x