নেপালে বিধ্বস্ত উড়োজাহাজটি আগেও দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ০২:৩৪ , মার্চ ১৩ , ২০১৮

২০১৫ সালের ৪ সেপ্টেম্বর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে একই উড়োজাহাজ। ফাইল ছবি।নেপালে ১২ মার্চ বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ড্যাশ-৮ কিউ-৪০০ উড়োজাহাজটি আগেও দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল। ২০১৫ সালের ৪ সেপ্টেম্বর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণের সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে উড়োজাহাজটি। সে সময় বাংলা ট্রিবিউনসহ অন্যান্য সংবাদমাধ্যমে এ খবর ছবিসহ প্রকাশিত হয়।

জানা গেছে, ২০১৫ সালের ৪ সেপ্টেম্বর ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের এই উড়োজাহাজটি (রেজিস্ট্রেশন নম্বর S2-AGU) সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণের সময় রানওয়ে থেকে ছিটকে পাশের জমিতে চলে যায়। তবে সে সময় যাত্রীরা কেউ হতাহত হননি। এ কারণে বিমানবন্দর বন্ধ রাখতে হয় দীর্ঘ সময়। সেদিন সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সে সময় সিভিল এভিয়েশন অথরিটির জনসংযোগ কর্মকর্তা একেএম রেজাউল করিম জানিয়েছিলেন, বিমানটি সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণের পর টারমাকের দিকে যাওয়ার সময় এর পেছনের ডান পাশের চাকা স্থানচ্যুত হয়ে যায়। পরে দ্রুত যাত্রীদের উদ্ধার করা হয়। সেদিন উড়োজাহাজটিতে ৭৪ জন যাত্রী ছিলেন।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একই উড়োজাহাজ সোমবার (১২ মার্চ) বাংলাদেশ সময় বেলা ২টা ২০ মিনিটে নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় পতিত হয়। ৭৮ জন ধারণে সক্ষম কানাডার তৈরি ড্যাশ-৮-কিউ৪০০ উড়োজাহাজটিতে চারজন ক্রু ও ৬৭ যাত্রী মিলে ৭১ আরোহী ছিলেন। এরমধ্যে ৩৭ জন পুরুষ, ২৮ জন নারী ও দুইজন শিশু। এই যাত্রীদের মধ্যে ৩২ জন বাংলাদেশি, ৩৩ জন নেপালি, একজন চীনা ও একজন মালদ্বীপের নাগরিক। এছাড়া উড়োজাহাজটিতে চারজন ক্রু ছিলেন।

২০১৫ সালের ৪ সেপ্টেম্বর বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত প্রতিবেদন

সর্বশেষ গত ৪ মার্চ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের আরেকটি ড্যাশ-৮ কিউ৪০০ উড়োজাহাজ। সেটির রেজিস্ট্রেশন নম্বর S2-AGW.

সেদিন ঢাকা থেকে যশোরে ফ্লাইটি ছেড়ে যাওয়ার নির্ধারিত সময় ছিল সকাল সাড়ে ৭টা। তবে কুয়াশার কারণে ফ্লাইটি বিলম্বিত হয়ে সাড়ে ৯টার দিকে ছেড়ে যায়। ঢাকা-যশোরের মাঝামাঝি স্থানে গিয়ে পাইলট ত্রুটির সিগন্যাল পেয়ে জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন। যশোরে অবতরণ না করে ঢাকায় ফিরে জরুরি অবতরণ করেন পাইলট। উড়োজাহাজটিতে ৭১ জন যাত্রী ছিলেন। জরুরি অবতরণ করলেও কোন ধরনের হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। সে সময় ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের জিএম (মার্কেটিং সাপোর্ট অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন) মো. কামরুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, ককপিটের মনিটরে পাইলট ফ্রপলারে সমস্যার সিগন্যাল পেলে জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন। পরে ঢাকায় নিরাপদে জরুরি অবতরণ করেন। তবে অবতরণের পর কোনও ত্রুটি খুঁজে পাওয়া যায়নি। যাত্রীদের অন্য আরেকটি উড়োজাহাজে যশোরে নিয়ে যাওয়া হয়।

সোমবারের দুর্ঘটনার জন্য পাইলট বা উড়োজাহাজের কোনও ত্রুটি ছিল না বলে দাবি ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইমরান আসিফের। তিনি বলেন, নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কন্ট্রোল রুম থেকে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেওয়ার কারণে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে থাকতে পারে।

ইউএস বাংলার জিএম (মার্কেটিং সাপোর্ট অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস) মো. কামরুল ইসলাম জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন-
কাঠমান্ডু যাবেন বিমানমন্ত্রী  

ড্যাশ-৮ বিমানের যত দুর্ঘটনা

বিধ্বস্ত বিমানের ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার

১৪ বাংলাদেশিকে জীবিত উদ্ধার

ফেসবুকজুড়ে স্বজনদের আহাজারি

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ে কন্ট্রোল রুম

নেপালের প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার ফোন

ইউএস বাংলার ওই ফ্লাইটে যাত্রী ছিলেন যারা

ছবিতে কাঠমুন্ডুর ইউএস বাংলার বিমান দুর্ঘটনা

তথ্য দিতে আরও ঘণ্টাখানেক লাগবে: বিমানমন্ত্রী

কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত বিমানে ছিলেন খুলনার আলিফ

বিধ্বস্ত বিমানে গাজীপুরের একই পরিবারের পাঁচজন

বিধ্বস্ত বিমানের বাংলাদেশি আরোহী ৩২, নেপালি ৩৩

৬৭ যাত্রী নিয়ে ইউএস-বাংলার বিমান নেপালে বিধ্বস্ত

সফর সংক্ষিপ্ত করে মঙ্গলবার দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী

বিধ্বস্ত বিমানের সব যাত্রী বীমা সুবিধা পাবেন: ত্রাণমন্ত্রী

চিকিৎসক দল পাঠানো হবে নেপালে: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছেন বেঁচে যাওয়া নেপালি

সংবাদ সম্মেলনে যা জানালো ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স

ফ্লাইটে ছিলেন বৈশাখী টিভির প্রতিবেদক ফয়সাল আহমেদ

ইউএস বাংলার বিমান বিধ্বস্তে নিহত অন্তত ৫০, নিখোঁজ ৯

নেপালে বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক
নিখোঁজ বিলকিস ও তার স্বামীকে খুঁজতে কাঠমান্ডু যাবেন ভাই

ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় এ পর্যন্ত যা জানা গেছে
নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত: উদ্ধার অভিযানের ভিডিও

নেপালে বিধ্বস্ত বিমানে ছিলেন রাগীব রাবেয়া মেডিক্যালের ১৩ শিক্ষার্থী
‘বাংলাদেশি আহতদের সঙ্গে কথা বলেছি, নিহতদের শনাক্তে কাজ করছি’

বিধ্বস্ত উড়োজাহাজে থাকা যাত্রীদের তথ্য পেতে ইউএস বাংলার হটলাইন

কাঠমান্ডু যাচ্ছেন ইউএস বাংলা ও সিভিল এভিয়েশেনের কর্মকর্তারা

নেপালি ১৩ শিক্ষার্থীর স্মরণে রাগীব রাবেয়া মেডিক্যালে তিন দিনের শোক

দুর্ঘটনা নিয়ে পরস্পরকে দোষারোপ ইউএস বাংলা ও বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের

অবতরণের আগে কন্ট্রোল রুম থেকে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেওয়া হয়েছিল: ইউএস বাংলার সিইও

/সিএ/এমপি/চেক-এমওএফ/

x