এশিয়া অঞ্চলের সিভিল এভিয়েশন প্রধানদের পরবর্তী সম্মেলন বাংলাদেশে

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১২:৩৬ , আগস্ট ২৬ , ২০১৯

কাঠমান্ডুতে ডিজিসিএ সম্মেলনের শেষ পর্বে পরবর্তী সম্মেলন বাংলাদেশে হওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হলে সংগঠনের পতাকা তুলে দেওয়া হয় বেবিচক চেয়ারম্যান মফিদুর রহমানের হাতে।

২০২০ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সিভিল এভিয়েশন প্রধানদের ৫৭তম কনফারেন্স। নেপালের কাঠমান্ডুতে ডিরেক্টর জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশনের (ডিজিসিএ) ৫৬তম কনফারেন্সে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সোমবার (২৬ আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

গত ১৯ থেকে ২৩ আগস্ট কাঠমান্ডুতে ডিজিসিএ’র কনফারেন্সটি অনুষ্ঠিত হয়। বেবিচকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এ সভায় এ অঞ্চলের ৩৭টি দেশের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের প্রধান ও প্রধিনিধিসহ এভিয়েশন সংশ্লিষ্টরা যোগ দেন। ৫ দিনব্যাপী এ কনফারেন্স শেষে ডিজিসিএ’র ৫৬তম কনফারেন্সের জন্য বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান মো. মফিদুর রহমানের হাতে আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশনের পতাকা হস্তান্তর করা হয়। 

বেবিচক জানায়, নেপালে অনুষ্ঠিত এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৩৭টি দেশের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের প্রধানদের এ সভায় বাংলাদেশ থেকে বেবিচকের চেয়ারম্যান মো. মফিদুর রহমান, সদস্য (ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশন্স) চৌধুরী মোহাম্মদ জিয়াউল কবীরসহ একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেয়। সভায় আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন (আইকাও), বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং, এয়ারবাসসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সংস্থার ৪০০ জন প্রতিনিধি অংশ নেন। নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি কনফারেন্সের উদ্বোধন করেন। আইকাও’র  প্রেসিডেন্ট অলিমুনিয়া বার্নাড ওলিও, নেপালের ট্যুরিজমমন্ত্রী যোগেশ ভট্টরাই, আইকাও’র এশিয়া প্যাসিফিক আঞ্চলিক পরিচালক অরুণ মিশ্র সভায় উপস্থিত ছিলেন।

এ কনফারেন্সে নেপাল সিভিল এভিয়েশন অথরিটির ডাইরেক্টর জেনারেল রাজন পোখরেল চেয়ারম্যান ও বেবিচকের চেয়ারম্যান মো. মফিদুর রহমান ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। সভায় ৬১টি আলোচনাপত্র, ৬৩টি তথ্যপত্র উপস্থাপন করা হয়। বাংলাদেশ থেকে ৩টি আলোচনাপত্র ও ৬টি তথ্যপত্র উপস্থাপন করা হয়। 

/সিএ/টিএন/এমএমজে/

x