রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী জাহাজের সুরক্ষায় সংসদে বিল

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ২২:৩৫ , সেপ্টেম্বর ১১ , ২০১৯





জাতীয় সংসদ ভবন (ছবি- সাজ্জাদ হোসেন)রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী জাহাজের সুরক্ষায় সংসদে বিল তোলা হয়েছে। বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ (সুরক্ষা) বিল-২০১৯ সংসদে তোলেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। পরে বিলটি পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।
বিলে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের বৈদেশিক বাণিজ্যে সমুদ্রপথে পরিবাহিত পণ্যের অন্যূন ৫০ শতাংশ পণ্য এই আইনের বিধান সাপেক্ষে বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজের মাধ্যমে পরিবাহিত হবে।
১৯৮২ সালের এ-সংক্রান্ত অধ্যাদেশ অনুযায়ী সমুদ্রপথে পরিবাহিত পণ্যের ৪০ শতাংশ পতাকাবাহী জাহাজে পরিবহনের বিধান ছিল।
উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী সামরিক আমলের আইনকে বাংলায় রূপান্তর করে নতুন আইন করতে বিলটি তোলা হয়েছে।
কোনও জাহাজ এই আইনের কোনও বিধান লঙ্ঘন করলে ওই জাহাজ কর্তৃপক্ষকে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত প্রশাসনিক জরিমানা করা হবে। আগের অধ্যাদেশে জরিমানার পরিমাণ নির্ধারণ করা ছিল না।
বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জাহাজ মালিকরা যেন আরও বেশি বেশি জাহাজ ক্রয় বা সংগ্রহ করতে আগ্রহী হন সেজন্য নতুন আইনে সুরক্ষা সুবিধা বিদ্যমান অধ্যাদেশের চেয়ে আরও বৃদ্ধি করা হয়েছে।
শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র বিল
শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র বিল-২০১৯ সংসদে উত্থাপন করেন। পরে বিলটি পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।
১৯৬২ সালের এ-সংক্রান্ত ‘রেজ্যুলেশন’ বাতিল করে নতুন আইন করতে বিলটি তোলা হয়েছে।

/ইএইচএস/এইচআই/

x