‘আত্মপরিচয় সংকটে ভুগছে প্রধান বিরোধী দল’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৯:৩৫ , মে ১৭ , ২০১৮

জাতীয় পার্টিজাতীয় সংসদে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি আত্মপরিচয় সংকটে ভুগছে বলে একটি গবেষণা প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। একইসঙ্গে জাতীয় পার্টি জাতীয় সংসদে বিরোধী দল হিসেবে প্রত্যাশিত ভূমিকা রাখতে পারছে না বলে মন্তব্য করেছে টিআইবি।
বৃহস্পতিবার (১৭ মে) টিআইবি কার্যালয়ে ‘পার্লামেন্ট ওয়াচ দশম জাতীয় সংসদ চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশন (জানুয়ারি - ডিসেম্বর ২০১৭)’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে প্রধান বিরোধী দল সম্পর্কে এসব কথা তুলে ধরা হয়।
প্রধান বিরোধী দলের সংসদ সদস্যদের বক্তব্যে তাদের আত্মপরিচয় বা অবস্থান সংকট প্রতিফলিত হয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। সংসদে দেওয়া জাতীয় পার্টির সদস্যদের দুটি বক্তব্য গবেষণা প্রতিবেদনে উদ্ধৃত করা হয়েছে। এর একটি হলো—‘জনগণ আমাদের বিরোধী দল মনে করে না। মনে করবেই বা কী করে? আমরা কথা বলতে পারি না।’ অন্যটি হলো— ‘আমরা সরকারি দলও না বিরোধী দলও না। এটা আপনিও জানেন, আমরাও জানি। এভাবে দেশ চলতে পারে না।’
আইন প্রণয়নে জনমত যাচাই-বাছাই ও সংশোধনী প্রস্তাবের আলোচনায় প্রধান বিরোধী দলের তুলনামূলক অংশগ্রহণ বেশি হলেও মতামত এবং প্রস্তাব গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচিত হয় না বলে টিআইবির গবেষণা প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়। একই সঙ্গে প্রধান বিরোধী দলের চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের কার্যক্রম নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়। 

সংসদের প্রধান বিরোধী দলের চেয়ারম্যান নিজেও অধিবেশন চলাকালে বলেছেন, ‘জাপা নেতিবাচক রাজনীতি করে না। আমরা সরকারের ভুল ধরে দেওয়ার চেষ্টা করছি। এরপরও আমাদের নিয়ে মন্ত্রিসভায়ও অনেক হাসাহাসি করে। আমাদের নিয়ে হাসবেন না। তাহলে গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থাকে বিদ্রুপ করা হবে।’

২০১৫ সালে জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের অবস্থান নিয়ে সমালোচনা করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেছিলেন, “সংসদে বিরোধী দল সরকারের অংশ। তাই তারা আত্মপরিচয়ের সংকটে আছে। সংসদে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছে না। যে কারণে বর্তমান সংসদ হয়ে পড়েছে ‘পুতুল নাচের নাট্যশালা’।”

টিআইবির নির্বাহী পরিচালকের এমন মন্তব্যের পর অনেক সমালোচনা হলেও দশম জাতীয় সংসদ চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশনে (জানুয়ারি - ডিসেম্বর ২০১৭) প্রধান বিরোধী দলের সদস্যদের বক্তব্যে নিজের করা মন্তব্য সত্য বলে প্রমাণি হয়েছে, বলেন ড. ইফতেখারুজ্জামান।

দশম জাতীয় সংসদ চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশনে (জানুয়ারি - ডিসেম্বর ২০১৭) প্রধান বিরোধী দলের মোট সদস্যদের ২৮ শতাংশ মোট কার্যদিবসের ৭৫ শতাংশের বেশী কার্যদিবস এবং ৪০ শতাংশ সদস্য মোট কার্যদিবসের ৫১-৭৫ শতাংশ কার্যদিবসে উপস্থিত ছিলেন। অন্যান্য বিরোধী সদস্যদের ২৬ শতাংশ সদস্য মোট কার্যদিবসের ৭৫ শতাংশের বেশী কার্যদিবস এবং ৫৩ শতাংশ সদস্য মোট কার্যদিবসের ৫১-৭৫ শতাংশ কার্যদিবসে উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন টিআইবি ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারপারসন অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, উপদেষ্টা-নির্বাহী ব্যবস্থাপনা অধ্যাপক ড. সুমাইয়া খায়ের এবং রিসার্চ ও পলিসি বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল হাসান।

মূল প্রতিবেদনের সারাংশ উপস্থাপন করেন টিআইবি’র গবেষণা ও পলিসি বিভাগের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার মোর্শেদা আক্তার ও নিহার রঞ্জন রায় এবং অ্যাসিসট্যান্ট প্রোগ্রাম ম্যানেজার অমিত সরকার। সংশ্লিষ্ট গবেষক দলের অন্য সদস্য টিআইবি’র গবেষণা ও পলিসি বিভাগের প্রোগ্রাম ম্যানেজার জুলিয়েট রোজেটি এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

/আরজে/এপিএইচ/

x