সবুজবাগে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৮:৫০ , মার্চ ১৫ , ২০১৯

ধর্ষণরাজধানীর সবুজবাগ থানাধীন দক্ষিণগাঁও এলাকায় আট বছরের এক শিশু ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় শাহ আলম (৫০) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে সবুজবাগ থানা পুলিশ। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরও এক আসামি পলাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) সকাল ৯-১০টার মধ্যে এই ঘটনাটি ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটিকে প্রথমে মুগদা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে দুপুরের দিকে শিশুটিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যায় তার স্বজনরা। বর্তমানে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য শিশুটিকে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটিকে ওসিসি-তে ভর্তি করা হয়।

শিশুটির মা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘স্কুল বন্ধ থাকায় সকালে পাশের বাসার ছাদে খেলার কথা বলে বের হয়েছিল আমার মেয়ে। তার ঘণ্টা খানিক পরে রক্তাক্ত অবস্থায় বাসায় ফিরে আসে। কিন্তু ভয়ে তখন কিছুই বলছিল না। পরে সে ধর্ষণের বিষয়টি খুলে বলে।’

 তার অভিযোগ, ‘আমাদের বাসা থেকে একটু দূরে রব (৫০) নামে এক ব্যক্তি (দিনমজুর) ভাড়া থাকে। তিনি আমার মেয়েকে প্রলোভন দেখিয়ে তার ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেছে। সে সময় আলম ওরফে ফরমা আলম তাকে সহযোগিতা করেছে।’

এ বিষয়ে ঢামেক হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডের কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন, ‘শিশুটি মারাত্মক শকড হয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় স্বজনদের রক্ত জোগাড় করতে বলা হয়েছে।’

সবুজবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুর রহমান বাংলা ট্রিবিউকে বলেন, শিশু ধর্ষণের ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। এই ঘটনায় তার কোনও সংশ্লিষ্টটা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনাস্থলে পুলিশের টিম কাজ করছে।

এদিকে সবুজবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মফিজুল আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে শাহ আলম নামে একজন আমরা আটক করেছি। রব নামে আরেকজনকে আটকের চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

/এসজেএ/এআইবি/এসটি/

x