ডিজির পদত্যাগের দাবিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনে অচলাবস্থা

চৌধুরী আকবর হোসেন ১২:৩৩ , জুন ১৮ , ২০১৯

 

সামীম মোহাম্মদ আফজাল

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) মহাপরিচালক (ডিজি) সামীম মোহাম্মদ আফজালের পদত্যাগের দাবিতে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে। ক্ষমতার অপব্যবহারসহ নানা অভিযোগে সামীম আফজালকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকাল থেকে কর্মবিরতি শুরু করেছেন সংস্থাটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। 

ইফা’র সূত্রে জানা গেছে, শারীরিক অসুস্থতার কারণে সামীম মোহাম্মদ আফজাল দীর্ঘদিন ধরে নিয়মিত অফিস করছেন না। ক্ষমতার অপব্যবহারসহ নানা অভিযোগে কেন তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল করা হবে না, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দেওয়া এমন নোটিশের পর থেকেই ইসলামিক ফাউন্ডেশনে সৃষ্টি হয়েছে অচলাবস্থা। সংস্থাটির কর্মকর্তারাও চাচ্ছেন—সামীম মোহাম্মদ আফজাল  ইফা’র ডিজির পদ থেকে পদত্যাগ করুক। সোমবার (১৭ জুন) সংস্থাটির পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালকরা এ বিষয়ে বৈঠক করেছেন। সেখানে  ইফা’র ২০ জন পরিচালক পদমর্যাদার কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, সামীম মোহাম্মদ আফজালকে তারা অনুরোধ করবেন, তিনি যেন স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেন।

বৈঠকে উপস্থিত থাকা এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘ডিজির কারণে ইফার কার্যক্রম স্থবির হয়ে আছে। এজন্য আমরা বৈঠকে বসেছিলাম।  বৈঠকে তিনটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইফার ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ণ রাখার স্বার্থে ও অচলাবস্থা দূর করতে ডিজিকে শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হবে। প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার স্বার্থে অবিলম্বে বোর্ড অব গভর্নরসের জরুরি বৈঠক আহ্বান করা হবে। ইফার চেইন অব কমান্ড ফিরে আনতে সংশ্লিষ্ট সব মহলের সহযোগিতা চাওয়া হবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানো গেছে, সামীম মোহাম্মদ আফজাল জুডিশিয়াল সার্ভিসে ১৯৮৩ সালে যোগদান করেন। ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ পান তিনি। অভিযোগ রয়েছে—নিয়োগ, পদোন্নতিসহ নানা বিষয়ে অনিয়ম করেছেন তিনি। গত ১০ জুন  তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়।

সূত্র জানায়, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এ নোটিশের পর থেকেই অস্থিরতা শুরু হয় ইসলামিক ফাউন্ডেশনে। গুঞ্জন ওঠে, সামীম মোহাম্মদ আফজাল স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করবেন। শনিবার (১৫ জুন) বন্ধের দিনে সামীম আফজাল আগারগাঁওয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনে যান। তার দফতর থেকে বিভিন্ন নথিপত্র সঙ্গে করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে ইফা’র সচিব কাজী নূরুল ইসলামসহ অন্যরা বাধা দেন। তবে পরের দিন রবিবার (১৬ জুন) অফিসে যাননি তিনি। এরপর সোমবার (১৭ জুন) অফিসে গেলে সামীম আফজালের দফতরের চারপাশে অবস্থা নেন সংস্থাটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

এদিকে ইফা মহাপরিচালকের পদত্যাগের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে কর্মবিরতি শুরু করেছেন কর্মকর্তা কর্মচারীরা। ইফা’র সচিব কাজী নূরুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মহাপরিচালকের পদত্যাগের দাবিতে অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারী কর্মবিরতি পালন করছেন।’

এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে ফোন কেটে দেন ইফা ডিজি সামীম মোহাম্মদ আফজাল।

/এপিএইচ/এমএমজে/

x