‘পুরুষতান্ত্রিক মতাদর্শ থেকে মুক্ত হলেই মুক্তি মিলবে নারীর’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ২০:২০ , নভেম্বর ০৮ , ২০১৯

পুরুষতান্ত্রিকতা একজন নারীও ধারণ করতে পারে। নারীর মুক্তি তখনই ঘটে, যখন সে নিজেকে পুরুষতান্ত্রিক মতাদর্শ থেকে মুক্ত করতে পারে। এসব আলোচনা করেছেন লিট ফেস্টের একটি সেশনের আলোচকরা।


শুক্রবার (৮ নভেম্বর) ঢাকা লিট ফেস্টের দ্বিতীয় দিন সন্ধ্যায় লন চত্বরে আয়োজিত ‘মুক্ত নারী, রুদ্ধ সমাজ’ শীর্ষক এক আলোচনায় এসব কথা বলেন আলোচকরা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলা ট্রিবিউনের প্রধান প্রতিবেদক উদিসা ইসলাম ও একাত্তর টেলিভিশনের সংবাদকর্মী মিথিলা ফারজানা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন মুক্তাশ্রী চাকমা।

উদিসা ইসলাম বলেন, 'নারীর মুক্তি এই রুদ্ধ সমাজে অবশ্যই সম্ভব। শুধু লড়াইটা জারি রাখতে হবে। আমাদের সমাজের বড় জটিলতা হচ্ছে নারীরা পুরুষতান্ত্রিক মতাদর্শ নিয়ে চলে। নারীর আসল মুক্তি তখনই ঘটে, যখন সে নিজেকে পুরুষতান্ত্রিক মতাদর্শ থেকে মুক্ত করতে পারে।' 'আপনারা সম-অধিকার চান। তাহলে বাসে কেন নারীদের জন্য আলাদা সিট থাকবে? আমি বলতে চাই, দীর্ঘদিন ধরে আপনারা আমাদের বাসে উঠতেই দেননি। ফলে আমরা যখন উঠতে পারছি, আমরা বলছি আমাদের পিছিয়ে রেখেছেন। আগে আমরা কাতারে দাঁড়াই। তখন বলবো এখন সিট লাগবে না। সেই কাতার পর্যন্ত আমাদের যেতে হবে’—বলেন উদিসা।

মিডিয়ায় নারীদের কেন জিজ্ঞেস করা হয় তারা বিবাহিত কিনা? এক দর্শকের এই প্রশ্নের জবাবে উদিসা ইসলাম বলেন, ‘আমি ১৫ বছর মিডিয়ায় কাজ করেছি। কেউ কখনও আমাকে জিজ্ঞেস করেনি আমি কয়বার বিয়ে করেছি বা বিয়ে করেছি কিনা। মূলত যারা নিয়োগ দেন, তারা বিবেচনা করেন যে মেয়েটিকে নয় মাস ছুটি দিতে হবে কিনা। অফিস এগুলোকে হ্যাসেল মনে করে’।
মিথিলা ফারজানা বলেন, ‘মুক্ত নারী তো আমরা হতে চাই না, মুক্ত মানুষ হতে চাই। শুধুই নারী হিসেবে যে জায়গায় আমি সীমাবদ্ধ, সেই জায়গা থেকে আমি বের হয়ে আসতে চাই। সমাজের আট-দশজন পুরুষ যে সুবিধাগুলো ভোগ করে, আমিও সেই সুবিধাগুলো ভোগ করতে চাই। কোনও অযাচিত সুবিধা নয়।’
তিনি আরও বলেন, ‘সমান অধিকারে নয়, আমি বিশ্বাস করি সমান সুযোগে। আমি নারী হিসেবে যে বঞ্চনার শিকার হয়েছি বছরের পর বছর, সেই বঞ্চনা থেকে বের হয়ে আসতে চাই। আমি মাতৃত্বকালীন ছুটি চাই এক বছর বেতনসহ। আমি মাতৃত্বকালীন আলাদা সুবিধা পেতে চাই আমার সন্তানকে দেখাশোনা করার জন্য। এটি সমান অধিকারের পর্যায়ে পড়ে না। এটি বিশেষ অবস্থা, বিশেষ সুবিধার আওতায় পড়ে।’ এরপর দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন মিথিলা।

এইচএন/এনএ/এমওএফ/

x