নতুনদের নিয়ে আশাবাদী তামিম

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৯:২১ , ফেব্রুয়ারি ১৩ , ২০১৮

সংবাদ সম্মেলনে হালকা মেজাজেই ছিলেন তামিম। ছবি-বিসিবিবৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশের নতুন ফরম্যাটের লড়াই। নতুনদের নিয়ে প্রথম ম্যাচের দলে সরগরম অবস্থা। এমন একটি দল নিয়ে কি ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বাংলাদেশ? সংবাদ সম্মেলনে আশাবাদী দেখা গেলো তামিম ইকবালকে।

জাতীয় দলে প্রথমবারের মতো সুযোগ পেয়েছেন আরিফুল হক, আফিফ হোসেন,  মেহেদী হাসান, জাকির হাসান ও আবু জায়েদ রাহী। মঙ্গলবার দলে যুক্ত হলেন আরেক নবাগত নাজমুল হোসেন অপু। 

নবাগতদের নিয়ে তামিমের বক্তব্য, ‘আমি দুই-তিনজনের নাম উল্লেখ করি। বিশেষ করে আবু জায়েদ রাহীকে আমি জাতীয় দলে জায়গা পাওয়ার দাবিদার মনে করি। গত দুই বছর ধরে বিপিএলে শীর্ষ বোলারদের একজন। আরিফুল হকও গত দুই তিন বছর ধরে বিপিএলে নিয়মিত ভালো খেলে যাচ্ছে। আমরা সবসময় এমন খেলোয়াড়ের কথা বলি যে ম্যাচটা শেষ করে দিয়ে আসতে পারবে।’

নির্বাচকদের আস্থা রাখতে পারবে নতুনরা, এমন বিশ্বাস বাংলাদেশি ওপেনারের, ‘আমি নিশ্চিত, যারাই ওদের দলে নিয়েছেন তারা তাদের সামর্থ্য ও দক্ষতা আছে দেখেই নিয়েছেন টি-টোয়েন্টিতে। ওদের এক দুই ম্যাচ দেখে বিচার করা ঠিক হবে না।’

এখন থেকেই টি-টোয়েন্টি নিয়ে ভাবা উচিত মনে করেন তামিম। তিনি বলেছেন, ‘এখন পরিস্থিতি একটু আলাদা। আমরা সাধারণত টি টোয়েন্টি খেলেছি খুবই কম। কিন্তু আমাদের পরবর্তী ৬ মাস বা এক বছরের সূচি অনুযায়ী আমরা কিন্তু অনেক টি-টোয়েন্টি খেলবো। সম্ভবত ওয়ানডের চেয়েও বেশি।’

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের সুন্দর ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান, ‘কোন ধরনের পরিকল্পনায় আমরা এগোবো, সেটা ঠিক করার এখনই আসল সময়।  কারণ ২০২০ সালের বিশ্বকাপ আছে। এখনও হাতে আমাদের অনেক সময়। আমার বিশ্বাস, এই ফরম্যাটে আমরা আগের চেয়েও ভালো করতে পারবো। কারণ আন্তর্জাতিক মানের ঘরোয়া প্রতিযোগিতা বিপিএল খেলি আমরা।’

হতাশার দুটি সিরিজ থেকে ঘুরে দাঁড়াতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ তামিম। টি-টোয়েন্টিতে দল সেরাটা দেবে বিশ্বাস তার, ‘অবশ্যই, গত সিরিজ দুটি ছিল খুবই হতাশার। কিন্তু যেটা চলে গেছে, সেটা গেছেই। এখন আমরা কীভাবে এখান থেকে ঘুরে দাঁড়াবো সেটাই ব্যাপার। কারণ নতুন একটা সিরিজ হচ্ছে, যেটা ভিন্ন ফরম্যাটের। এখানে কীভাবে নিজের সেরাটা দেওয়া যায়, সেটাই চিন্তা করছি আমরা। এখন একটাই লক্ষ্য, আমাদের পরের সিরিজ ভালো খেলতে হবে। ছেলেদের রান করতে হবে, উইকেট পেতে হবে। যদি আমরা সেরাটা দেই তাহলে চমৎকার টি-টোয়েন্টি সিরিজ হবে।’

সোমবার সংবাদ মাধ্যমকে একহাত নিয়েছিলেন দলের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। ‘মিডিয়ার কারণে ক্রিকেটের উন্নতি থমকে গেছে’, এমন মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তামিম বলেছেন, ‘তিনি (সুজন) কী বলেছেন, সেটা আমার না জানাই ভালো। আমি এটুকু বলতে পারি, সমালোচনা সব জায়গায় হয়।’ সংবাদ মাধ্যমের সমালোচনা কানে নিতে চান না বাংলাদেশের সেরা ওপেনার, ‘দল ও ম্যানেজমেন্ট হিসেবে শক্তিশালী থাকাই বড় কথা। মিডিয়াও খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ, বিশেষ করে এখন। আমরা আমাদের কাজ করি, মিডিয়া তাদের কাজ করুক। আমাদের নিজেদের কাজে মনোযোগ দেওয়া উচিত।’

/এফএইচএম/

x