র‌্যাংকিং ‘বাজি’ রেখে জ্যামাইকায় লড়বে বাংলাদেশ

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৬:০৩ , জুলাই ১২ , ২০১৮

36973017_2113645075545066_6471390622619009024_nজ্যামাইকার উইকেট প্রায় অ্যান্টিগার মতো, যেখানে ব্যাটিং ধসে প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানে গুটিয়ে যাওয়ার লজ্জা পেতে হয়েছে বাংলাদেশকে। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টেও তাদের কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ‘অগ্নিপরীক্ষা’ উতরে গিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর মিশন নিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় স্যাবাইনা পার্কে নামবেন সাকিবরা। তাছাড়া এই টেস্ট হারলে র‌্যাংকিংয়েও নেমে যেতে হবে তাদের।

ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার হবে গাজী টিভি ও চ্যানেল নাইনে।

প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ২১৯ রানের বড় ব্যবধানে হার বাংলাদেশের মনোবলে ধাক্কা দিয়েছে। এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়েই জ্যামাইকাতে খেলতে হবে বাংলাদেশকে। উইকেট অ্যান্টিগার মতোই সবুজ হবে ধারণা করছেন কোর্টনি ওয়ালশ। উইকেটে ঘাস থাকবে, বাউন্স হবে। তবে অ্যান্টিগার মতো জ্যামাইকাতেও একই পরিস্থিতির মুখে দলকে পড়তে হবে না বিশ্বাস কোর্টনি ওয়ালশের।

অ্যান্টিগার দু:স্বপ্ন ভুলে জ্যামাইকায় সাকিবের দল ঘুরে দাঁড়াবে মনে করছেন ওয়ালশ, ‘অ্যান্টিগার মতো এখানেও (স্যাবাইনা পার্কে) পেসবান্ধব উইকেট। আমরা প্রথম টেস্ট বাজেভাবে হেরেছি। এই টেস্টে আমাদের সুযোগ আছে ফিরে আসার, যতটা পারি আমরা ভালো খেলার চেষ্টা করবো। এটা বড় পরীক্ষা। আশা করি এই পরীক্ষায় আমরা উতরে যেতে পারবো।’

প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের ব্যাটিং শিবিরে আতঙ্কের নাম ছিল কেমার রোচ। তাই দ্বিতীয় টেস্টে তার বিশ্রামে থাকার খবর খুশির হতে পারে। যদিও তার জায়গায় এসেছেন প্রস্তুতি ম্যাচে ৩ উইকেট নেওয়া আলজারি যোসেফ।

রোচের বিশ্রাম স্বস্তির খবর হলেও চোট হানা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্যাম্পেও। গোড়ালির ইনজুরিতে তিন সপ্তাহের (সর্বোচ্চ ৬ সপ্তাহ) জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে গেছেন শফিউল ইসলাম। প্রথম ইনিংসে পেসারদের নির্বিষ বোলিংয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচের একাদশে তার জায়গা পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। এমন কন্ডিশনে ইনজুরিরর কারণে একজন পেসারের বদলে স্পিনারদের ওপরই ভরসা রাখতে হচ্ছে সাকিবকে।

ব্যাটিংয়ে আগের টেস্টে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন তামিম-সাকিব-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ। সিনিয়র চার ব্যাটসম্যানের ব্যর্থতায় বড় স্কোর জমা পড়েনি স্কোরবোর্ডে। তারা এবার ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে দারুণ কিছু করবেন প্রত্যাশা দলের। জ্যামাইকা টেস্টেও তাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে।

প্রথম ম্যাচে কেবল ব্যাটিং নং, বোলিং ও ফিল্ডিংয়েও বাজে সময় গেছে সাকিবদের। এই টেস্টে নিজেদের উড়াড় করে দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে বাংলাদেশের অধিনায়ক, ‘অ্যান্টিগার স্মৃতি ভুলে ছেলেরা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী। প্রথম দিনটি কীভাবে শুরু করি সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাটিং কিংবা বোলিং যেটাই করি না কেন, আমাদের শুরুটা ভালো করতে হবে। শুরুর ধারাটা আমাদের ধরে রাখতে হবে। পাঁচ দিনের খেলা, আমাদের বেশির ভাগ সেশন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করতে হবে। তাহলেই আমরা ম্যাচটা জিততে পারবো। ’

বাংলাদেশের জন্য আরও একটি কারণে এই টেস্টটি গুরুত্বপূর্ণ। র‌্যাংকিংয়ের অবনমন ঠেকাতে জয়ের বিকল্প নেই সাকিব-তামিম-মুশফিকদের সামনে। র‌্যাংকিংয়ে পেছনে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজ জ্যামাইকা টেস্ট জিতে নিলেই বাংলাদেশকে টপকে আটে উঠে যাবে। বাংলাদেশ নেমে যাবে ৯ নম্বরে।

অ্যান্টিগা টেস্ট ভুলে গিয়ে জ্যামাইকার উইকেটে শিষ্যদের অনুপ্রেরণার সব রসদই ঢেলে দিয়েছেন স্টিভ রোডস-ওয়ালশরা। উপভোগের মন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে জ্যামাইকাতে মাঠে নামতে বলেছেন এখানেই বেড়ে ওঠা ওয়ালশ, ‘ওদের এই টেস্ট উপভোগ করতে বলেছি। বলেছি এটা পেসারদের জন্য বড় সুযোগ। নিজেদের প্রমাণ করো। আমি এই টেস্টের দিকে তাকিয়ে আছি।’

পরিসংখ্যান অবশ্য চোখ রাঙাচ্ছে বাংলাদেশকে। জ্যামাইকাতে বাংলাদেশের অতীত রেকর্ড ভালো নয়। ২০০৪ সালে এই ভেন্যুতে একটিমাত্র টেস্ট খেলতে এসে ইনিংস ব্যবধানে হারতে হয়েছিল সাকিবদের। এখন দেখার বিষয় পরিসংখ্যানকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে জ্যামাইকা জয় করতে পারেন কিনা সাকিব-তামিমরা!

/আরআই/এফএইচএম/

x