আলিসের হ্যাটট্রিকে ঢাকা জিতলো ২ রানে

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৮:১০ , জানুয়ারি ১১ , ২০১৯

ঢাকা ডায়নামাইটস পেয়েছে রোমাঞ্চকর জয় (ফাইল ছবি)তুমুল উত্তেজনার আঁচ ছিল আগে থেকেই। ঢাকা ডায়নামাইটস-রংপুর রাইডার্সের হাইভোল্টেজ ম্যাচে মাঠের লড়াইয়েও সেটা পাওয়া গেল শতভাগ। বিপিএলের রোমাঞ্চকর এই ম্যাচটিতে অভিষিক্ত আলিস আল ইসলামের হ্যাটট্রিকে ঢাকা পেয়েছে ২ রানের নাটকীয় জয়।

উত্তেজনার কমতি ছিল না। শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে দর্শকের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো। মাঠে যাওয়া দর্শকদের নিরাশ করেনি ঢাকা-রংপুর। ব্যাট-বলের লড়াইটা হয়েছে তাদের সমানে সমান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৮৩ রান করা ঢাকা একেবারে শেষ বলে নিশ্চিত করেছে ২ রানের জয়। একসময় জয়ের পাল্লা ভারি থাকা রংপুর শেষ দিকে এলোমেলো হয়ে যাওয়ায় ২০ ওভারে ৯ উইকেটে করতে পারে ১৮১ রান।

রংপুর হেরেছে আসলে তরুণ এক স্পিনারের কাছে। বিপিএলে ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা আলিসের অসাধারণ বোলিংয়ের সামনে ভেঙে পড়ে রংপুরের মিডল অর্ডার। এই অফ স্পিনারের হ্যাটট্রিকে হাত থেকে প্রায় বেরিয়ে যাওয়া ম্যাচ আবার নিয়ন্ত্রণে নেয় ঢাকা।

মোহাম্মদ মিঠুনের দুটো ক্যাচ ছাড়ার শাপমোচন করেছেন আলিস অসাধারণ হ্যাটট্রিকে। ইনিংসের ১৮তম ও নিজের তৃতীয় ওভারের শেষ তিন বলে এবারের বিপিএলের প্রথম হ্যাটট্রিক পূরণ করেন আলিস। চতুর্থ বলে মোহাম্মদ মিঠুনকে (৪৯) বোল্ড করে শুরু তার উইকেট উদযাপন। পরের বলে মাশরাফি বিন মুর্তজাকেও (০) একইভাবে ফিরিয়ে তৈরি করেন হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা। যেটা তিনি সত্যি করেন ষষ্ঠ বলে ফরহাদ রেজাকে (০) সাকিবের হাতে ক্যাচ বানিয়ে।

আলিসের হ্যাটট্রিকে বৃথা গেছে রাইলি রোসের ঝড়ো ইনংসটি। প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান ওয়ান ডাউনে নেমে খেলেছেন ৮৩ রানের চমৎকার ইনিংস। ৪৪ বলে ৮ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় সাজানো রোসো ইনিংসের ওপর ভর দিয়ে জয়ের পথে এগিয়েও যাচ্ছিল রংপুর। কিন্তু আলিসেরই শিকার হয়ে তিনি প্যাভিলিয়নে ফিরলে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে সব।

রবি বোপারা ৩ রানে আউট। বিনি হাওয়েল ৮ বলে করেন ১৩ রান। এরপরই আলিসের ওই আঘাত। অভিষেকেই ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতা এই স্পিনার ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে পেযেছেন ৪ উইকেট। দুটি উইকেট শিকার সুনিল নারিনের।

অবশ্য শেষে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন শফিউল ইসলাম। শেষ ওভারে রংপুরের দারকার ছিল ১৪ রান। আলিসের করা ওই ওভারের প্রথম দুই বলে দুই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ম্যাচ জমিয়ে দেন শফিউল। শেষ চার বলে দরকার পড়ে তখন ৬ রান। যদিও আলিস ঘুরে দাঁড়ালে ঢাকা পায় ২ রানের নাটকীয় জয়।

/কেআর/

x