‘যথেষ্ট নিরাপত্তা পেলেই কোথাও খেলতে যাবে বাংলাদেশ’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ১৫:১১ , মার্চ ১৫ , ২০১৯

54433842_2266055823661243_6309796717239730176_nনিউ জিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় এখনও আতঙ্কিত বাংলাদেশ। এমন ঘটনার মুখোমুখি আগে কখনও হননি ক্রিকেটাররা। তবে এই একটি ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতায় প্রশ্ন উঠেছে বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা নিয়ে। শুক্রবার গুলশানে নিজ বাসায় দেশের ক্রিকেট বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন জানান, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার আশ্বাস পেলেই এখন থেকে বাংলাদেশ দল কোথাও সফরে যাবে।

কোনও টুর্নামেন্ট খেলতে কিংবা দ্বিপাক্ষিক সিরিজে অংশ নিতে বিদেশি কোনও দল বাংলাদেশ সফরে এলে নজিরবিহীন নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। বিমানবন্দর থেকে শুরু করে টিম হোটেল, টিম হোটেল থেকে ভেন্যু এবং ভেন্যু থেকে টিম হোটেল- পুরো পথই নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকে। এমনকি বিদেশি খেলোয়াড়রা মাঠের বাইরে কোথাও বেড়াতে গেলে সেখানেও থাকে এই ব্যবস্থা।

কিন্তু বাংলাদেশ কোথাও গেলে শক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা চোখে পড়ে না কিংবা কোনও কোনও ক্ষেত্রে নিরাপত্তাই দেওয়া হয় না ক্রিকেটারদের জন্য। সেটা যে কতটা সত্য, তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিলো ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর।

শুক্রবার জুমার নামাজ পড়তে মসজিদে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। কিন্তু ততক্ষণে মসজিদে ঘটে গেছে রক্তক্ষয়ী ঘটনা। টিম বাস মসজিদের সামনে পৌঁছানোর পর এক অচেনা নারী সতর্ক করেন ক্রিকেটারদের। অথচ সেখানে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের জন্য কোনও ধরনের নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। শুধু কি নিরাপত্তারক্ষী, কোনও টিমের লিয়াজোঁ অফিসারও ছিল না। এমন নিরাপত্তাহীন অবস্থায় ক্রাইস্টচার্চে কঠিন বিপদের মধ্যে পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। ৫ মিনিটের হেরফের হলেই ভয়ানক পরিস্থিতির শিকার হতেন তারা।

এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। ভবিষ্যতে নিজেরা যথেষ্ট নিরাপত্তা না পেলে বিদেশ সফরে বিরত থাকবেন বলে জানান তিনি, ‘আমাদের দেশে কোনও বিদেশি দল যখন আসে, তখন তারা যে ধরনের নিরাপত্তা নিয়ে কথাবার্তা বলে, আমাদের সেটা দিতে হয়। কিন্তু আমরা এমনটা কখনও পাইনি। সেটা নিয়ে আমরা জোরাজুরি করিনি। আসলে আমার কাছে যেটা মনে হয়েছে, এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে এরকম কোনও ধারণাই নিউ জিল্যান্ডের নেই।’

তবে এবার পরিস্থিতি পাল্টে যাবে মনে করেন বোর্ড প্রধান, ‘এখন হয়তো এ ব্যাপারে সতর্ক হবে তারা। তবে অন্যরা কী করে জানি না, আজকের ঘটনার পরে এটা নিশ্চিত যে এখন থেকে যে দেশেই বাংলাদেশ যাক না কেন, আমাদের ন্যূনতম চাওয়া অনুযায়ী নিরাপত্তা দিতে হবে। এটা যারা দিতে পারবে, তাদের ওখানেই আমরা খেলতে যাবো। এছাড়া খেলতে যাওয়া সম্ভব না।’

এ ঘটনার পর নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা যায় কিনা চিন্তা করছে বিসিবি। নাজমুল বলেন, ‘আজকের এই ঘটনার পর সব বদলে যাবে। এখন থেকে এ ব্যাপারে আমাদের ভাবতে হবে। যদি প্রয়োজন হয়, অবশ্যই আমরা নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

বাংলাদেশ যেভাবে বিদেশি ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা দেয়, সেই মানের নিরাপত্তা এখন থেকে প্রত্যেক দেশে প্রতিটি সিরিজে দেওয়ার আহ্বান জানালেন বোর্ড সভাপতি, ‘আমরা যখন অস্ট্রেলিয়া বা নিউ জিল্যান্ডের মতো দেশে যাই, তখন আমরা বিদেশি ক্রিকেটারদের যে মানের নিরাপত্তা দেই সেটা থাকে না আমাদের দলের জন্য। সেটা একটা জিনিস। আর একটা কথা আমরা বলে এসেছি, এমন ঘটনা কিন্তু যে কোনও জায়গাতেই হতে পারে। কাজেই আমার মনে হয় প্রত্যেকটা দেশকেই এখন সতর্ক হতে হবে। তাদের হয়তো ধারণা থাকতে পারে, এটা হয়তো কেবল উপমহাদেশে হতে পারে। এখন আর কিন্তু এই জিনিসটা নেই।’

/আরআই/এফএইচএম/এমওএফ/

x