রোডস চাইলে থেকে যেতে পারেন!

রবিউল ইসলাম, লন্ডন থেকে ১১:৪৪ , জুলাই ১১ , ২০১৯

স্টিভ রোডস২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি থাকলেও স্টিভ রোডসের সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে গত সোমবার সেটা বাতিলের কথা জানান বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী। কিন্তু দুই দিনের মধ্যে শুনতে হলো অন্য কথা। বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন বুধবার লন্ডনে সাংবাদিকদের জানালেন, চাইলে বাংলাদেশের কোচের দায়িত্বে থেকে যেতে পারবেন রোডস।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন ভেঙে যায় ভারতের কাছে হেরে। প্রত্যাশা পূরণ করতে না পারায় প্রশ্ন ওঠে কোচের সামর্থ্য নিয়ে। তাই বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফেরার পর থেকে চাকরি হারানোর শঙ্কায় ছিলেন রোডস। সেই শঙ্কা সত্যি হয় বাংলাদেশের বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার কয়েক দিনের মাথায়। কিন্তু নাজমুল হাসানের কথা বেশ ধুম্রজাল তৈরি করলো রোডসের ভবিষ্যৎ নিয়ে।

রোডসের ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিলেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট, ‘রোডস চাইলে থাকতেও পারে। কারণ এরকম (চলে যাওয়া নিয়ে) কোনও কথা হয়নি। তবে তার আর আমাদের চিন্তায় একটু পার্থক্য আছে। এজন্যই প্রশ্ন উঠেছে তিনি আমাদের সঙ্গে কাজ চালিয়ে যাবেন কিনা।’

এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা রোডসের ওপর ছেড়ে দিলেন নাজমুল হাসান, ‘আমরা ধারণা তিনিই সিদ্ধান্ত জানাবেন। আমি এখন পর্যন্ত জানি না। হয়ত দুই-এক দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন। সামনে যেহেতু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে, তাড়াতাড়ি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।’

বিশ্বকাপে দলের পারফরম্যান্সই মূলত রোডস ও বিসিবিকে আলোচনার টেবিলে নিয়ে গেছে বললেন বোর্ড প্রধান, ‘বিশ্বকাপের পর প্রত্যেক দলের কোচিং স্টাফ ও খেলোয়াড়দের মূল্যায়ন করা হয়। এই প্রক্রিয়ায় কাজ করছে বিসিবি। একেকজনের একেক রকম স্টাইল থাকে। তারটা যে খারাপ সেটা বলছি না। কিন্তু অনেক সময় আমাদের সঙ্গে চিন্তাধারা এক না হলে সমস্যায় পড়তে হয়। সেজন্য তাকে নিয়ে বসা উচিত। তাকে কিন্তু আমরা বাদ দেইনি। তিনি ইচ্ছা করলে আরও কয়েক মাস থাকতে পারেন।’

রোডস চলে গেলে প্রধান কোচের জায়গায় নতুন মুখ নাকি পুরোনোদের কাউকে আনা হবে প্রশ্নে নাজমুল হাসানের কৌশলী জবাব, ‘প্রত্যেকের কাজের একটা ধাপ থাকে। এর আগেও আমরা বিশ্বকাপ খেলেছি। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপে সারা বিশ্ব দেখেছে, এমন কোন বোর্ড কিংবা মিডিয়া নেই যারা বাংলাদেশের প্রশংসা করেনি! বাংলাদেশ যে কাউকে হারাতে পারে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা ব্যর্থ হয়েছি বলে কোচের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে লাভ নেই। তবে সামনে ভালো করতে যা যা করা দরকার, সেটা করবো।’

/আরআই/এফএইচএম/

x