টি-টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার কাছে হোয়াইটওয়াশ পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক ২৩:০৪ , অক্টোবর ০৯ , ২০১৯

পাকিস্তানকে তাদেরই মাটিতে হোয়াইটওয়াশ করার আনন্দ শ্রীলঙ্কারটি-টোয়েন্টির এক নম্বর দল পাকিস্তান। সঙ্গে ছিল ঘরের মাঠের দর্শক-সমর্থক। এরপরও দ্বিতীয় সারির শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে তারা। সিরিজ হারের পর লাহোরের শেষ টি-টোয়েন্টিও হেরেছে স্বাগতিকরা।

বুধবার গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি শ্রীলঙ্কা জিতেছে ১৩ রানে। ওশাডা ফার্নান্ডোর হার না মানা ঝড়ো ৭৮ রানের ইনিংসে শ্রীলঙ্কা নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে স্কোরে জমা করে ১৪৭ রান। এই লক্ষ্যে ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রানের বেশি করতে পারেনি পাকিস্তান। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০তে জিতে শ্রীলঙ্কা হোয়াইটওয়াশ করেছে স্বাগতিকদের।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কার শুরুটা ভালো ছিল না। পাকিস্তান সফরে দারুণ পারফর্ম করা দানুস্কা গুনাথিলাকা ফেরেন ৮ রানে। মোহাম্মদ আমিরের আঘাতের পর উইকেট উৎসবে যোগ দেন ইমাদ ওয়াসিম। এই স্পিনার ফেরান আরেক ওপেনার সাদিরা সামারাবিক্রমাকে (১২)। খানিক পর আবারও আমিরের আঘাতে ভানুকা রাজাপাকশা (৩) প্যাভিলিয়নে ফিরলে ৩০ রানে লঙ্কানরা হারায় ৩ উইকেট।

ওই ধাক্কা কাটিয়ে ওঠে সফরকারীরা ওশাডা ও অ্যাঞ্জেলো পেরেরার প্রতিরোধে। পেরেরা ১১ বলে ১৩ রান করে ফিরলেও একপ্রান্ত আগলে রেখে শ্রীলঙ্কার রান দেড়শ’র কাছাকাছি নিয়ে যান ওশাডা। ৪৮ বলে এই ব্যাটসম্যান খেলেন অপরাজিত ৭৮ রানের ঝড়ো ইনিংস, যাতে ছিল ৮ বাউন্ডারির ‍সঙ্গে ৩ ছক্কার মার। অধিনায়ক দাসুন শানাকা করেন ১২ রান।

পাকিস্তানের সবচেয়ে সফল বোলার আমির। এই পেসার ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে পেয়েছেন ৩ উইকেট। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন ইমাদ ও ওয়াহাব রিয়াজ।

ওশাডা ফার্নান্ডোর হাফসেঞ্চুরি উদযাপন১৪৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে হারিস সোহেল হাফসেঞ্চুরি পূরণ করলেও হার ঠেকাতে পারেনি পাকিস্তান। প্রথম বলেই ফেরেন ওপেনার ফখর জামান (০)। বাবর আজম ভালো ইনিংসের ইঙ্গিত দিলেও থামেন ২৭ রানে। হারিস ৫০ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৫২ রানের ইনিংস খেলে জয়ের স্বপ্ন দেখালেও পরের দিকের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় স্বাগতিকদের।

অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ করেন ১৭ রান। ৮ বলে ১৭ রানে অপরাজিত থাকেন ইফতিখার আহমেদ, তার সঙ্গে ৬ বলে ১২ রানে অপরাজিত ছিলেন ওয়াহাব রিয়াজ।

শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে সফল বোলার ভানিন্দু হাসারঙ্গা। ম্যাচ ও সিরিজসেরার পুরস্কার জেতা এই স্পিনার ৪ ওভারে ২১ রান দিয়ে পেয়েছেন ৩ উইকেট। ২ উইকেট নিয়েছেন লাহিরু কুমারা। ক্রিকইনফো

/কেআর/

x